ENG
২৪ জুলাই ২০১৭, ৯ শ্রাবণ ১৪২৪

সানি-মাহমুদুলের ব্যাটে শেখ জামালের রোমাঞ্চকর জয়

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-05-18 20:52:07 BdST

bdnews24

লাগাম হাতবদল হয়েছে অনেকবার। উত্তেজনার পরদ চড়েছে ক্রমশ। শেষ দিকেও ম্যাচ দুলেছে পেন্ডুলামের মতে। শেষ পর্যন্ত শেষ রোমাঞ্চের বাঁক পেরিয়ে শেষ হাসি শেখ জামালের। লেজের দুই ব্যাটসম্যান ইলিয়াস সানি ও মাহমুদুল হক দলকে এনে দিয়েছেন শ্বাসরূদ্ধকর জয়।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে অন্যতম ফেবারিট প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ২ উইকেটে হারিয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। বিকেএসপিতে উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে জিতেছে ১ বল বাকি রেখে।

শেষ ২ ওভারে শেখ জামালের প্রয়োজন ছিল ১৩ রান। পেসার আল আমিন হোসেন ৪৯তম ওভারে দেন মাত্র ৩ রান। শেষ ওভারে চাই ১০।

আরিফুল হকের প্রথম বলেই চার মারেন সানি। কিন্তু আউট তিনি পরের বলেই। পরের দুই বলে দুটি সিঙ্গেল। পঞ্চম বলে বাউন্ডারিতে দলকে স্মরণীয় জয় এনে দেন মাহমুদুল।

জয়টা মনে রাখার মতো শুধু শেষ ওভারের কারণেই নয়। একসময় হারের মুখে ছিল শেখ জামাল। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেছেন এই ইলিয়াস সানি ও মাহমুদুলই।

শেষ স্বীকৃত ব্যাটসম্যান রাজিন সালেহ যখন আউট হলেন, শেখ জামালের চাই ৫৭ বলে ৭০ রান। হাতে উইকেট মোটে তিনটি।

সানি ও মাহমুদুলের ব্যাটে সেখান থেকেই শেখ জামালের অবিশ্বাস্য প্রত্যবর্তন। অষ্টম উইকেটে ৫৩ বলে ৬৪ রানের জুটি গড়লেন দুজন।

৪৭ বলে ৪৪ রান করে শেষ ওভরে ফিরেছেন সানি। মৌসুমে মাত্র দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমে ২৩ বলে ২৭ রানের অপরাজিত ইনিংসে দলের জয় নিয়ে ফিরেছেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মাহমুদুল।

২৭১ রান তাড়ায় শুরুর দিকেও বড় কোনো জুটি বা বড় ইনিংস পায়নি শেখ জামাল। তবে অবদান ছিল বেশ কজনের। ওপেনিংয়ে ৩৩ বলে ৩৬ করেছেন ফজলে রাব্বি। তিনে নেমে ভারতীয় প্রশান্ত চোপড়া ৪৮। দ্বিতীয় উইকেটে দুজনের জুটি ছিল ৭২ রানের।

চারে প্রমোশন পেয়ে অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার সোহাগ গাজী চারটি চার ও ৩ ছক্কায় করেছেন ৫৪। তাতেই এগিয়ে গেছে শেখ জামাল।

অথচ শুরু থেকেই তারা ছিল পিছিয়ে। প্রাইম ব্যাংকের শুরুটা ছিল দুর্দান্ত। জাকির হাসান ও মেহেদি মারুফ উদ্বোধনী জুটিতে তেলেন ৯৪ রান। ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৬১ রানে ফেরেন অধিনায়ক মারুফ।

তৃতীয় উইকেটে অভিমন্যু ঈশ্বরণ ও আল আমিনের জুটি ৯৪ রানের। দুটি করে চার ও ছক্কায় ৫২ করেছেন ইশ্বরন। ৪৩ বলে ৪২ আল আমিন।

শেষ দিকে আসিফ আসহেদ ৩০ রান করলেও সঙ দিতে পারেননি অন্যরা। শেষ ১০ ওভারে তাই রান উঠেছে ৬১।

তার পরও ২৭০ রানের চ্যালেঞ্জিং পুঁজি ছিল প্রাইম ব্যাংকের। শেখ জামালও ছিল খাদের কিনারায়। কিন্তু ক্রিকেটে শেষ কথা বলে যে কিছু নেই!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

প্রাইম ব্যাংক: ৫০ ওভারে ২৭০/৯ (মারুফ ৬১, জাকির ৩৪, অভিমন্যু ৫৪, আল আমিন ৪২, সালমান ৩, আরিফুল ২১, আসিফ ৩১, তাইবুর ৫, নাহিদুল ৫, অপু ১*; শাহাদাত ২/৪৩, জিয়াউর ১/৪০, গাজি ১/৫৮, সানি ০/৪৩, তানবির ১/৪৪, শাকিল ০/১৬, ফজলে রাব্বি ০/২৫)।

শেখ জামাল: ৪৯.৫ ওভারে ২৭১/৮ (ফজলে রাব্বি ৩৬, মাহবুবুল ০, প্রশান্ত ৪৮, গাজি ৫৪, তানবির ৪, জিয়াউর ৩৪, রাজিন ৭, সানি ৪৪, মাহমুদুল ২৭*, শাহাদাত ১*; আল আমিন ১/৪০, নাহিদুল ০/২৬, আরিফুল ৪/৭৫, নাজমুল ১/৪০, আসিফ ০/৯, তাইবুর ১/২০, সালমান ১/৪৬, আল আমিন ০/৮)।

ফল: শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ২ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: ইলিয়াস সানি


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  প্রাইম ব্যাংক  শেখ জামাল  ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ