‘দলের সবাই লিটন-মুশফিকের পাশে আছে’

অনেক দিন থেকে রান নেই দুজনের কারও ব্যাটে। তবে দুজনের ওপর ভরসার কমতিও নেই দলের ভেতরে। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বললেন, লিটন কুমার দাস ও মুশফিকুর রহিমের সামর্থ্যে প্রবল আস্থা তার ও দলের সবার।

প্রথম রাউন্ডের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে শুরুটা ভালো করেও লিটন আউট হন ২৩ বলে ২৯ রান করে। এই নিয়ে টি-টোয়েন্টিতে টানা ১১ ইনিংস ফিফটি এলো তার ব্যাট থেকে। এই সময়টায় ৭ বারই আউট হন দু অঙ্ক ছোঁয়ার আগেই।

জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি করে ফিফটি ছাড়া আর কোনো দলের বিপক্ষে তার পঞ্চাশ নেই। ৪০ ইনিংসে ওই চার ফিফটিতে রান ৭৫১, গড় মোটে ১৯.২৫।

এই সংখ্যাগুলো লিটনের ব্যাটিং সামর্থ্যের বড় বিজ্ঞাপন নয়। তবে মাহমুদউল্লাহর মনে গেঁথে আছে লিটনের সামর্থ্য।

“আমরা সবাই জানি ওর সামর্থ্য। সবাই ওর পাশে থাকি। খুবই ভালো একজন ক্রিকেটার। ওর যা স্কিল আছে, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে পারফর্ম করার জন্য যথেষ্ট ভালো। প্রতিদিনই কষ্ট করছে ও। আমরা সবাই ওর পাশে থাকছি।”

টানা ১১ ইনিংস ফিফটির দেখা পাননি মুশফিকুর রহিমও। তবে তার অবস্থা আদতে আরও শোচনীয়। এবার বিশ্বকাপের ৩ ম্যাচ মিলিয়ে এখনও ৫০ রান হয়নি তার। গত মাসে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে ৫ ইনিংস মিলিয়ে করেছিলেন ৩৯।

সব মিলিয়ে এই সংস্করণে সবশেষ ২৭ ইনিংসে তার একটি মোটে ফিফটি। এই সময়টায় গড় ১৬.৪৫, স্ট্রাইক রেট ১০২.৫৯।

এই পারফরম্যান্স যে কোনো মানদণ্ডেই বাজে। ৯৪টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলা অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের জন্য তো রীতিমত বিব্রতকর। দলে জায়গা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে এখন।

তবে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বা দলের ভেতর কোনো প্রশ্ন নেই তাদেরকে নিয়ে।

“আমাদের কাউকে নিয়ে দুশ্চিন্তা নেই। ওরা সবাই অসাধারণ ক্রিকেটার। স্রেফ কয়েকটি ম্যাচে পারফর্ম করেনি দেখে বিশ্বাস হারাচ্ছি না। সম্ভবত বাইরে যারা আছে, তারা বিশ্বাস হারাতে পারে। দল থেকে আমরা ওদের পাশে ও সাথে আছি।”