জিয়াকে ‘হেয় করে’ নাটক: তারানা হালিমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা খারিজ

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপনসহ নাটকে ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি তারানা হালিমসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে করা মামলা খারিজ করে দিয়েছে আদালত।

ঢাকার দ্বিতীয় সহকারী সহকারী জজ মো. আশিকুজ্জামান মঙ্গলবার মামলার গ্রহণযোগ্যতার বিষয়ে বাদিপক্ষের শুনানি নিয়ে এ আদেশ দেন।

আদালতে মামলার গ্রহণযোগ্যতার বিষয়ে শুনানি করেন বাদীর আইনজীবী বিএনপি নেতা মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও ওমর ফারুক ফারুকী।

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দায়মুক্তি দেওয়ার ঘটনাকে উপজীব্য করে নির্মিত মঞ্চনাটক ‘ইনডেমনিটি’ ইতিহাস নির্ভর হওয়ায় মামলাটির গ্রহণযোগ্যতা নেই বলে পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেছে আদালত।

মামলার অপর বিবাদী হলেন- নাট্যকার মান্নান হীরা, অভিনেতা সাজু খাদেম, আরটিভির চেয়ারম্যান মোরশেদ আলম এমপি ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট প্রযোজিত নাটকটিতে ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে দাবি করে নাটকটি সম্প্রচারে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে সোমবার মামলাটি করেছিলেন ছড়াকার আবু সালেহ।

বাদীর আইনজীবীরা শুনানিতে বলেন, ১৯৭৭ সলের ২৬ অক্টোবর ইনডমনিটি অধ্যাদেশ জারির সময় জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রীয় কোনো দায়িত্বে ছিলেন না। তিনি ক্ষমতায় এসছিলেন সিপাহীর জনতার বিপ্লবের মধ্য দিয়ে। জনগণই তাকে ক্ষমতায় বসিয়েছিলেন।

তারা বলেন, নাটকে ‘নতুন প্রজন্মের কাছে সর্বাধিক জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব’ জিয়া তথা বিএনপিকে খাটো করেছেন তারানা হালিম, মান্নান হীরাসহ বিবাদীরা। পঁচাত্তরের ১৫ অগাস্ট শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকাণ্ডে যারা জড়িত ছিলেন, তারা সবাই আওয়ামী লীগের মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন। তাই শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার দায় জিয়ার ওপর বর্তায় না। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ক্ষমতার ভাগাভাগি লুটপাট ও পদ-পদবীর দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগের নেতারাই শেখ তাকে হত্যা করেছে।

শুনানি শেষে বিচারক মামলাটি গ্রহণ না করে খারিজ করে দিলে বাদিপক্ষ ‘শেইম শেইম’ চেঁচাতে থাকে এবং মিছিল করে এজলাসকক্ষ ত্যাগ করে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে রাষ্ট্রপক্ষের কৌসুঁলি খন্দকার আব্দুল মান্নান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “মামলার বিষয়টি রাজনৈতিক বলে বিচারক বিচারক আমাদের কোনো বক্তব্য না শুনেই খারিজ করে দিয়েছেন।“

ইনডেমনিটি নাটকটিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর ক্ষমতা ভাগাভাগি এবং পর্দার আড়ালের ঘটনাও তুলে ধরা হয়। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের রক্ষার সেই অধ্যাদেশে কী ছিল ও তার পেক্ষাপটও তুলে ধরা হয়।

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর খুনিদের রক্ষায় খোন্দকার মোশতাক আহমেদ যে অধ্যাদেশ জারি করেছিলেন, পরে সংবিধান সংশোধন করে তা পোক্ত করেছিলেন জিয়াউর রহমান।

৪৩ মিনিটের নাটকের শুরুর উপস্থাপনা করেন তারানা হালিম। নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাজু খাদেম, ফজলুর রহমান বাবু, চিত্রনায়ক রিয়াজসহ অনেকে। নাটকটি রচনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন মান্নান হীরা।

নাটকটি প্রচারের পর থেকেই তার বিরুদ্ধে সরব বিএনপি। দলটির অভিযোগ, ‘ইনডেমনিটি’ নাটকের মাধ্যমে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে খাটো করার অপচেষ্টা ও অপপ্রচার চালানো হয়েছে।