রাতে জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: পিআইডি
জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে শুক্রবার ভাষণ দেবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা; বরাবরের মতই বিশ্বনেতাদের সামনে তার এই ভাষণ হবে বাংলায়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা আগেই জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস মহামারীর এই সঙ্কটের মধ্যে জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর এবারের ভাষণে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের বিষয়টি যেমন গুরুত্ব পাবে, তেমনি বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ রোহিঙ্গা সঙ্কট ও জলবায়ু পরিবর্তনের মত বিষয়গুলোও প্রাধান্য পাবে।

টেকসই উন্নয়ন, খাদ্য নিরাপত্তা এবং অসমতা দূরী করার বিষয়েও বাংলাদেশের অবস্থান এবং সুপারিশ এ বিশ্বসভায় তুলে ধরবেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতিসংঘের সূচি অনুযায়ী বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাতে এই ভাষণা দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতিসংঘ অধিবেশন উপলক্ষে নিউ ইয়র্ক সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২১ সেপ্টেম্বর সাধারণ পরিষদের সাধারণ আলোচনার সূচনা পর্বে অংশ নেন। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর এবারের অধিবেশনের পর্দা নামবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালে জাতিসংঘে প্রথম বাংলায় ভাষণ দেন। তার পদাঙ্ক অনুসরণ করে কার মেয়ে বাংলাদেশের আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এ বিশ্বমঞ্চে বাংলায় ভাষণ দিয়ে আসছেন। সাধারণ পরিষদে এটি হবে বাংলা ভাষায় দেয়া তার সপ্তদশ ভাষণ।

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে গতবছর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন বসেছিল ভার্চুয়ালি। এ বছর সশরীরে সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে মিলিত হয়েছেন বিশ্ব নেতারা।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর ৭৬তম অধিবেশনের শুরুর দিন সাধারণ পরিষদের প্রেসিডেন্ট হিসেবে মালদ্বীপের আব্দুল্লাহ শহিদ শপথ নেন। তিনিই এ অধিবেশনের উদ্বোধন করেন।

মহামারীর কারণে সাধারণ পরিষদের হলে এবার অনুমোদিত প্রতিনিধির সংখ্যা সীমিত রাখা হয়েছে। জাতিসংঘ সদস্য দেশগুলোর প্রতিনিধিদের সরাসরি উপস্থিত না হয়ে আগে ধারণ করা বক্তৃতা দিতে উৎসাহিত করা হয়েছে।