কোচিং সেন্টার বন্ধের চেষ্টা করছি: শিক্ষামন্ত্রী

সরকার আইন করে প্রাইভেট টিউশন ও কোচিং সেন্টারের ‘বাণিজ্য’ বন্ধ করার চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

শিক্ষাক্রমের পরিবর্তন নিয়ে সোমবার বিকালে তৌফিক ইমরোজ খালিদী লাইভে অতিথি হয়ে এসে এ বিষয়ে কথা বলেন তিনি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রধান সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদী অনুষ্ঠানে জানতে চান, “এই যে প্রাইভেট টিউশন নিয়ে যেই সমস্যাটা ছিল, আছে। বহু জায়গা থেকে অভিযোগ আসে, বিশেষজ্ঞরাও এই প্রশ্নটি তুলেছেন, বিভিন্ন সময়ে আলোচনা হয়।

”শিক্ষকরা মাঝেমাঝে বাধ্য করেন তাদের কাছে প্রাইভেট পড়তে যেতে, সে অনুযায়ী তারা তাদেরকে যাচাইবাছাই করেন, মূল্যায়ন করেন, কিছুটা অসততা আছে। দুর্নীতি আছে বলেও অভিযোগ আছে…।”

জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “যেটাকে আমরা কোচিং বাণিজ্য বলছি… বাণিজ্য কথাটা খারাপ না, কোচিং কথাটাও খারাপ না। কোচিং বাণিজ্য যখন হয়ে যায়…।”

লক্ষ্যে পৌঁছাতে শিক্ষায় চাই আমূল পরিবর্তন: শিক্ষামন্ত্রী  

এক ধর্মের শিশু অন্য ধর্মও জানবে? মন্ত্রী বললেন আশার কথা  

সমাপনী পরীক্ষা না থাকলেও পঞ্চম ও অষ্টমে বৃত্তি-সনদ থাকবে: মন্ত্রী  

তার কথার সূত্রে তৌফিক ইমরোজ খালিদী জানতে চান, “কিন্তু ক্লাসে না পড়িয়েই, বাইরে কোচিং…।”

”হ্যাঁ সেটাই সমস্যা,” উত্তরে বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

মন্ত্রীর কাছে তৌফিক ইমরোজ খালিদী তখন জানতে চান, “এটা বন্ধ করবেন?”

শিক্ষামন্ত্রী উত্তর দেন, “আমরাতো সেটা বন্ধ করবার চেষ্টা করছি। এবং নতুন করে শিক্ষা আইন করবার পথে আছি আমরা, সেই শিক্ষা আইন এলে এটা হয়ত অনেকটা দূরীভূত হবে।

”তারপরও কিন্তু বহু দিনকার জমে থাকা অনেক ধরনের সমস্যা, সব সমস্যাকে আপনি একটা জিনিস দিয়ে, একটি উপায় দিয়ে বন্ধ করতে পারবেন না।”

নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন করতে গেলে শিক্ষক, অভিভাবক, শিক্ষা প্রশাসন সবার ’মনোজগতে’ পরিবর্তন দরকার বলেও মন্তব্য করেন শিক্ষামন্ত্রী।