নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ক্রেয়নম্যাগের অনলাইন প্রদর্শনী

নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে সামাজিক সংগঠন ক্রেয়নম্যাগ অনলাইনে মাসব্যাপী আলোকচিত্র ও চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে।

রাজধানীর ইএমকে সেন্টারে গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া 'চেইঞ্জ ইওর থটস, চেইঞ্জ দ্য ওয়ার্ল্ড’ শীর্ষক এ প্রদর্শনী চলবে আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত৷

১৮ জনের বেশি শিল্পী এই প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছেন বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

অংশগ্রহণকারীরা তাদের ক্যামেরায় তোলা ছবি ও তুলির আঁচড়ে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ দিবসের চেতনা ফুটিয়ে তোলেন।

এই দিবসের প্রতিপাদ্য ও স্লোগান ‘কমলা রঙের বিশ্ব গড়ি’ কে মাথায় রেখে আলোকচিত্রী অভিষেক ভট্টাচার্যের নির্দেশনায় একটি ফটোশ্যুটের আয়োজন করা হয়েছিল, যেখানে অংশ নিয়েছিলেন মেহের আফরোজ শাওন, আজরা মাহমুদ, বুলবুল টুম্পা, আইরিন খান, এবং সাদিয়া রশ্নি সূচনা।

‘আই ক্যান’ ফাউন্ডেশনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আইরিন খান এ প্রদর্শনীতে তার আঁকা ছবি নিয়ে অংশগ্রহণ করেছেন।

প্রদর্শনীর মূল আকর্ষণ হয়ে উঠেছে সাবরিনা মুন্নির আলোকচিত্র। তার ছবিতে সমাজে নারীর প্রতি চলমান বঞ্চনার চিত্র ফুটে উঠেছে।

ক্রেয়নম্যাগের প্রতিষ্ঠাতা তানজিরাল দিলশান দিতান বলেন, “ছবি আসলে একজন মানুষের নিজস্ব গল্প বলে। আজকের এই শিল্পকর্মগুলো ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে নারীদের প্রতি হয়ে যাওয়া বঞ্চনার স্মারক হিসেবে থেকে যাবে।

“এ প্রদর্শনীর মূল লক্ষ্য হল নারী প্রতি সহিংসতার প্রতিবাদের বিষয়টিকে একটি নান্দনিক ভাষা দেওয়া, যা একই সাথে সহিংসতার বিরুদ্ধে যে চলমান সংগ্রাম তার কণ্ঠকেও জোরদার করবে।”

অংশগ্রহণকারীদের জমা দেওয়া ছবি থেকে বাছাই করা ছবিগুলো চলমান প্রদর্শনীতে দেখানো হচ্ছে। এই আয়োজনে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম সহযোগী হিসেবে রয়েছে ইএমকে সেন্টার। প্রদর্শনীটি দেখা যাবে https://emkcenter.org/exhibition/change-your-thought-change-the-world/ ওয়েবসাইটে।

ওয়েবিনারের মাধ্যমে আগামী ৩১ জানুয়ারি এ আয়োজনের সমাপ্তি হবে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এ ক্যাম্পেইনের সহযোগী  হিসেবে আছে- ব্যাকপেইজ পি আর, নারীপক্ষ, আই ক্যান ফাউন্ডেশন, চিলড্রেন অ্যান্ড উইমেন ভিশন ফাউন্ডেশন, ভলান্টিয়ার অপর্চুনিটিজ এবং ই এম কে সেন্টার।

এর আগে ‘নীরবতার পাপচক্র’ নামের ১৬ দিনব্যাপী একটি ক্যাম্পেইন আয়োজন করে সংগঠনটি, যেখানে রাজনৈতিক এবং সাংস্কৃতিক ব্যক্তিরা নারীর অধিকার রক্ষায় একযোগে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।