উত্তরায় নার্সের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ঢাকার উত্তরায় বাসা থেকে এক নার্সের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

শনিবার রাত সাড়ে ১২টায় উত্তরা ৯ নম্বর সেক্টরের ৩/ই রোডের এক নম্বর ভবনের পঞ্চমতলার ভাড়া বাসার কক্ষ থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

মৃত রিমা খাতুন (২৫) উত্তরার ৭ নম্বর সেক্টরে একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্যাথলজি সেকশনে চাকরি করতেন। তিনি গত বছর একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে নার্সিং ডিপ্লোমা পাস করে প্যাথলজিতে চাকরি করার পাশাপাশি নার্সিংয়ে বিএসসি করতেন।

উত্তরা পশ্চিম থানার এসআই আনোয়ারা বেগম বলেন, “মৃত নারী তার বাবাকে খুব ভালবাসতেন। বেশ কিছুদিন আগে তার বাবা অন্য মহিলাকে বিবাহ করে তাদের থেকে আলাদা বাসায় থাকতে শুরু করে। সে কারণে অভিমান করে জানালার গ্রিলের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।”

ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, রাতে পাশের রুমের সহপাঠীরা তার কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। খবর পেয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

মৃতের বাবা রিকশাচালক ইউনুছ আলী জানান, রোববার ভোররাতে মেয়ের ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার খবর পেয়েছেন এবং কী কারণে তার মেয়ে আত্মহত্যা করলো, সে বিষয়ে তার কোনো ধারণা নেই।

রিমার গ্রামের বাড়ি ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার নলবিল পাড়ায়। দুই ভাই, এক বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন বড়।