হজযাত্রা নির্ঝঞ্ঝাট করতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের একগুচ্ছ নির্দেশনা

ফাইল ছবি
চলতি বছর হজযাত্রা নির্ঝঞ্ঝাট করতে 'ডেডিকেটেড' ফ্লাইটের মাধ্যমে হজযাত্রী পরিবহনসহ একগুচ্ছ নির্দেশনা দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৮ জুলাই সৌদি আরবে হজ হবে। ৩১ মে হজ ফ্লাইট শুরুর লক্ষ্য নিয়ে সব প্রস্তুতি সারছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

কোভিড মহামারীতে দুবছর পর হজ করতে সৌদি আরবে যাওয়ার সুযোগ এসেছে বাংলাদেশিদের জন্য। তাদের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে গত ১৭ মে হজ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত পর্যালোচনা সভায় এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগ ছাড়াও বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসব নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

>> হজযাত্রী পরিবহনে সম্ভাব্য সব ফ্লাইট 'ডেডিকেটেড' হতে হবে। কোনোভাবেই যাতে ফ্লাইট বিপর্যয় না হয় সে বিষয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

>> হজযাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে সব এয়ারলাইন্সকে 'রুট-টু-মক্কা' ইনিশিয়েটিভ’ এর বাধ্যবাধকতা অনুসরণ করতে হবে।

>> হজ ক্যাম্পেই সব ইমিগ্রেশন শেষ করার ব্যবস্থা নিতে হবে। সেজন্য হজ ক্যাম্পে প্রয়োজনীয় সংখ্যক বুথ নিশ্চিত এবং বিশেষ প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য অতিরিক্ত হিসেবে বিমানবন্দরে দুটি বুথ স্থাপন করতে হবে।

>> সুষ্ঠুভাবে ইমিগ্রেশন শেষ করার জন্য ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে হজযাত্রীদের প্রয়োজনীয় তথ্য ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষকে আগেই সরবরাহ করতে হবে।

>> হজযাত্রীদের কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য আরটি-পিসিআর পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে 'ডেডিকেটেড' হাসপাতাল নির্ধারণসহ ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমন্বয় করে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগকে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ নিতে হবে।

>> হজ ব্যবস্থাপনার সঙ্গে সম্পৃক্ত কর্তৃপক্ষ যাতে সুরক্ষা অ্যাপ এ রক্ষিত হজযাত্রীদের করোনাভাইরাস টিকা গ্রহণ সংক্রান্ত তথ্য সহজে পায়, সেজন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবে।

>> হজযাত্রীদের যাতে কোনো ধরনের কষ্ট না হয়, সে লক্ষ্যে হজ ক্যাম্পে সব সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠানকে সার্বক্ষণিক সেবাদান কার্যক্রম নিশ্চিত করতে হবে।

>> বিমানবন্দর থেকে হজ ক্যাম্পে যাতায়াতের রাস্তা সচল ও বাধাহীন রাখতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এবং সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

>> ২০২২ সালের হজ ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম সফলভাবে শেষ করার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও সংস্থাকে নিজ নিজ দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে হবে।

এবার বাংলাদেশ থেকে ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন হজে যেতে পারবেন। তাদের মধ্যে চার হাজার জন সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবং ৫৩ হাজার ৫৮৫ জন বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন।

 

পুরনো খবর:

প্যাকেজ ২: হজের নিবন্ধনে আরও দুদিন সময়  

হজের নিবন্ধনে সময় বাড়ল

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে লাগবে অন্তত ৪ লাখ ৬৩ হাজার টাকা  

হজে যেতে খরচ বাড়ছে লাখ টাকা  

শূন্য কোটায় হজে যেতে ১০ মে’র মধ্যে আবেদন  

কারা হজে যেতে পারবেন, কী করতে হবে