ব্যাটিং ব্যর্থতার দিনে আইচের একার লড়াই

শুরুর কঠিন সময় পার করে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। চার রানে ৪ উইকেট হারিয়ে দিশেহারা দলকে টানলেন আইচ মোল্লা। একার লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে কেবল হারের ব্যবধানই কমাতে পারলেন তিনি।

শ্রীলঙ্কা সফরে দাম্বুলায় শুক্রবার প্রথম যুব ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হার ৪২ রানে। স্বাগতিকদের দেওয়া ২২৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় সফরকারীরা গুটিয়ে যায় ১৮৬ রানে।

মিলিত চেষ্টায় দুইশ ছাড়ানো পুঁজি গড়ে শ্রীলঙ্কা, যেখানে সর্বোচ্চ ৬৭ রান পাওয়ান পাথিরাজার। আর জবাব দিতে নেমে বাংলাদেশের হয়ে ৮৬ রানের ইনিংস খেলেন আইচ মোল্লা।

রানগিরি দাম্বুলা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কাকে শুরুতে চেপে ধরে বাংলাদেশ। ৩২ রানে টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে দেন রিপন মণ্ডল ও গোলাম কিবরিয়া। রিপনের দুই উইকেটই কট বিহাইন্ডে।সাদিশা রাজাপাকসের সঙ্গে ৫৩ ও পরে রাভিন ডি সিলভার সঙ্গে ৮০ রানের জুটিতে দলকে টানেন পাথিরাজা। ৭০ বলে ফিফটি করা এই ব্যাটসম্যানের প্রতিরোধ ভাঙেন নাইমুর রহমান। ৫ চারে ৬৭ করা পাথিরাজাকে বোল্ড করে দেন বাঁহাতি এই স্পিনার।

শ্রীলঙ্কার ৮ ব্যাটসম্যানই পার করেন দুই অঙ্কের ঘর। শেষ দিকে ইয়াসিরু রদ্রিগো খেলেন ১৫ বলে ৩ চার ও এক ছক্কায় ২৫ রানের ইনিংস। তাতে দুইশ পার করে শ্রীলঙ্কা।

রান তাড়ায় সাবধানী শুরু করেন মাহফিজুল ইসলাম ও ইফতিখার হোসেন। কিন্তু পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে মাহফিজুল স্টাম্পড হওয়ার পর ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং।

বিনা উইকেটে ৩১ থেকে ৩৫ রানে যেতে চার উইকেট হারিয়ে বসে তারা। প্রান্তিক নওরোজ নাবিল ও অধিনায়ক মেহরব হাসান ফেরেন শূন্য রানে।

আরিফুল ইসলামকে নিয়ে দলের হাল ধরেন আইচ। দুইজনেই খেলতে থাকেন দেখেশুনে। তাদের ৭০ রানের জুটি ভাঙে আরিফুল রান আউটে কাটা পড়লে। ৩৮ রান করেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

এরপর আর কেউ সঙ্গ দিতে পারেননি আইচকে। ৬৫ বলে ফিফটি করা এই ব্যাটসম্যান লড়াই চালাতে থাকেন নিজের মতো। কিন্তু তাতে তেমন কোনো লাভ হয়নি।

বাংলাদেশের শেষ পাঁচ ব্যাটসম্যানের একজনও যেতে পারেননি দুই অঙ্কে। পুরো ইনিংসেই ১০ পার করতে পারেন কেবল তিনজন।

শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে পেসার পাথিরানাকে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৯৩ বলে ৯ চারে ৮৬ রান করেন আইচ।

আগামী সোমবার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে দুই দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৫০ ওভারে ২২৮/৯ (জয়াবর্ধনে ৪, শাশেন ১৩, ড্যানিয়েল ১২, পাথিরাজা ৬৭, রাজাপাকসে ২৮, রাভিন ২৯, ওয়েল্লালাগে ১৫, বিক্রমাসিংহে ১৪, ম্যাথিউস ২, রদ্রিগো ২৫*, পাথিরানা ১*; আশিকুর ১০-০-৪৩-২, রিপন ১০-০-৫৯-৩, কিবরিয়া ৭-১-২১-১, আইচ ১-০-৬-০, মেহরব ৮-০-২৮-১, নাইমুর ১০-০-৫৪-১, আরিফুল ৪-১-১৪-১)।

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৬.২ ওভারে ১৮৬ (ইফতিখার ১৬, নাবিল ০, আইচ ৮৬, মেহরব ০, আরিফুল ৩৮, তাজিবুল ২, কিবরিয়া ০, নাইমুর ৭, রিপন ২, আশিকুর ৮*; বিক্রমাসিংহে ৬-১-৩৩-১, রদ্রিগো ৪-০-১৮-০, ওয়েল্লালাগে ১০-১-৩৭-১, ম্যাথিউস ১০-২-২৯-৪, ড্যানিয়েল ৬-০-২১-২, রাজাপাকসে ৫-০-২৫-০, পাথিরানা ৫.২-০-১৭-১)।

ফল: শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দল ৪২ রানে জয়ী।

সিরিজ: ৫ ম্যাচের সিরিজ ১-০ তে এগিয়ে লঙ্কান যুবারা।