‘ভয়ঙ্কর ভারত বিশ্বকাপের ফেভারিট’

এমনিতে মধ্যপ্রাচ্য ও উপমহাদেশের কন্ডিশনের সঙ্গে খুব একটা তফাৎ নেই। তার ওপর লম্বা সময় ধরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভেন্যু সংযুক্ত আরব আমিরাতে হয়েছে আইপিএল। ভারতীয় ক্রিকেটাররা তাই বেশ অভ্যস্ত এই কন্ডিশনের সঙ্গে। দলটির শক্তি-সামর্থ্যেও কমতি নেই। সব মিলিয়ে, টুর্নামেন্টের শিরোপার দাবিদার বিরাট কোহলির দলকেই মনে করছেন স্টিভেন স্মিথ।

ভারত ও অস্ট্রেলিয়া আছে সুপার টুয়েলভের আলাদা গ্রুপে। মূল আসর শুরুর আগে দুটি আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে দলগুলো। যেখানে ইংল্যান্ডের পর অস্ট্রেলিয়াকেও উড়িয়ে দিয়েছে ২০০৭ আসরের শিরোপাজয়ী ভারত।

ইংলিশদের বিপক্ষে ১৮৯ রানের লক্ষ্যে তারা ৭ উইকেটে জেতে ৬ বল হাতে রেখে। এরপর বুধবার অস্ট্রেলিয়াকে হারায় ৮ উইকেটে, প্রতিপক্ষের ১৫২ রান কোহলিরা পেরিয়ে যায় ১৩ বল আগে।

ভারতের বিপক্ষে ৪৮ বলে ৫৭ রানের ইনিংস খেলার পর স্মিথ বলেন, ব্যাটে-বলে দাপুটে ক্রিকেট খেলা কোহলির দল এই বিশ্বকাপের ফেভারিট দলগুলোর একটি।

“তারা ভয়ঙ্কর দল, সব দিক থেকেই পরিপূর্ণ। দারুণ কয়েকজন ম্যাচ জেতানো ক্রিকেটার আছে। গত কয়েক (এক) মাস ধরে তারা সবাই এই কন্ডিশনে আইপিএল খেলেছে। তাই এই পরিবেশের সঙ্গে তারা অভ্যস্ত।”

এবারের আইপিএলে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি স্মিথ। কোয়ালিফায়ার থেকে বাদ পড়া দিল্লি ক্যাপিটালসের হয়ে খেলেন ৮ ম্যাচ, ১১২.৫৯ স্ট্রাইক রেটে রান করেন কেবল ১৫২, ফিফটি নেই একটিও।

তবে বিশ্বকাপের আবহে এসেই তার ব্যাটে রানের দেখা মিলতে শুরু করেছে। প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে করেছেন ৩৫ রান। ভারতের বিপক্ষে ফিফটি। ছন্দ ফিরে পাচ্ছেন বলে জানালেন স্মিথ।

“মনে হচ্ছে, এখন আমি খুব ভালোভাবে বল মারতে পারছি। আমি আইপিএলে খুব বেশি ম্যাচ খেলিনি, তবে নেটে অনেক সময় কাটিয়েছি, কিছু বিষয় নিয়ে কাজ করেছি এবং এই কন্ডিশনের সঙ্গে অভ্যস্ত হচ্ছি।”

আগামী শনিবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের পথচলা শুরু করবে শিরোপার খোঁজে থাকা অস্ট্রেলিয়া।