নেদারল্যান্ডসকে গুঁড়িয়ে দিল শ্রীলঙ্কা

ম্যাচটি ছিল আদতে আনুষ্ঠানিকতার। মাঠের লড়াইয়েও ছড়াল না উত্তেজনা। ভানিদু হাসারাঙ্গা, লাহিরু কুমারাদের দারুণ বোলিংয়ে নেদারল্যান্ডস গুটিয়ে গেল পঞ্চাশের আগেই। বাকিটা সারলেন কুসল পেরেরা। বড় জয়ের আনন্দে মাঠ ছাড়ল শ্রীলঙ্কা।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথম রাউন্ডের শেষ ম্যাচে লঙ্কানদের জয় ৮ উইকেটে। শারজাহর কিছুটা মন্থর উইকেটে শুক্রবার নেদারল্যান্ডস ১০ ওভারে অলআউট হয় ৪৪ রানে। শ্রীলঙ্কা সেটি পেরিয়ে যায় ৭৭ বাকি থাকতে।

৪০ ওভারের ম্যাচ শেষ ১৭.১ ওভারেই!

নেদারল্যান্ডসের ৪৪ রান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন দলীয় স্কোর। সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডও তাদেরই। ২০১৪ সালের আসরে চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই তারা গুটিয়ে গিয়েছিল ৩৯ রানে।

শ্রীলঙ্কার ‘এ' গ্রুপের সেরা হওয়া নিশ্চিত হয়েছিল আগেই। টানা তিন জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে সুপার টুয়েলভে নামবে তারা।

দিনের প্রথম ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে এই গ্রুপের রানার্স-আপ হিসেবে পরের ধাপে পা রাখে নামিবিয়া। আইরিশদের সঙ্গে বিদায় নিল তিন ম্যাচেই হারা নেদারল্যান্ডস।

ডাচদের ইনিংসে কেবল দুই জন যেতে পারেন দুই অঙ্কে। কলিন আকারম্যান করেন সর্বোচ্চ ১১, বেন কুপার ১০। ১০ বলের বেশি খেলতে পারেন কেবল স্কট এডওয়ার্ডস (১৩)।

নেদারল্যান্ডসকে ৪৪ রানে গুঁড়িয়ে দিয়ে ৮ উইকেটে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। ‘এ’ গ্রুপের সেরা হয়ে সুপার টুয়েলভে জায়গা করে নিয়েছে দাসুন শানাকার দল। ছবি: আইসিসি।

৩ ওভারে মাত্র ৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন লঙ্কান পেসার কুমারা। ৯ রানে ৩ উইকেট লেগ স্পিনার হাসারাঙ্গার। রহস্য স্পিনার মাহিশ থিকশানা ১ ওভারে ৩ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম ওভারে রান আউটে বিদায় নেন আগের দুই ম্যাচে ফিফটি করা মাক্স ও’ডাওড। সেটিই শুরু। এরপর আসা-যাওয়ার মিছিলে যোগ দেন অন্যরাও।

দুশমন্থ চামিরাকে পরপর দুটি চার মেরে থিকশানার ক্যারম বলে বোল্ড হন কুপার। লঙ্কান স্পিনার এক বল পর বোল্ড করে দেন স্টেফান মাইবার্গকেও।

একটি করে চার ও ছক্কা মেরেই শেষ আকারম্যান। চার বলের মধ্যে তাকে ও বাস ডে লেডেকে এলবিডব্লিউ করে দেন হাসারাঙ্গা।

আর কুমারা তার ৩টি উইকেটই নেন দশম ওভারে, কোনো রান না দিয়েই! ৭ রানে ডাচরা হারায় শেষ ৫ উইকেট।

ছোট লক্ষ্য তাড়ায় পাথুম নিশানকা ফেরেন পাঁচ বলে শূন্য রানে। তিনে নেমে দুই অঙ্কে যেতে পারেনি চারিথ চারিথ আসালঙ্কাও। ২৪ বলে ৬ চারে অপরাজিত ৩৩ রানের ইনিংসে জয় নিয়ে ফেরেন পেরেরা।

একই মাঠে আগামী রোববার বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে সুপার টুয়েলভে যাত্রা শুরু করবে শ্রীলঙ্কা। গ্রুপ ১-এর বাকি চার দল অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

আর গ্রুপ ২-এ নামিবিয়া খেলবে ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, নিউ জিল্যান্ড ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নেদারল্যান্ডস: ১০ ওভারে ৪৪ (মাইবার্গ ৫, ও’ডাওড ২, কুপার ১০, আকারম্যান ১১, ডে লেডে ০, এডওয়ার্ডস ৮, ফন ডার মেরওয়া ০, সিলার ২, ক্লাসেন ১*, গ্লভার ০, মেকেরেন ০; চামিকা ১-০-৭-০, চামিরা ২-০-১৩-১, থিকশানা ১-০-৩-২, কুমারা ৩-১-৭-৩, হাসারাঙ্গা ৩-০-৯-৩) 

শ্রীলঙ্কা: ৭.১ ওভারে ৪৫/২ (নিশানকা ০, পেরেরা ৩৩*, আসালঙ্কা ৬, আভিশকা ২*; ক্লাসেন ২.১-০-১২-০, গ্লভার ৩-০-১২-১, মেকেরেন ২-০-২০-১) 

ফল: শ্রীলঙ্কা ৮ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: লাহিরু কুমারা