বাংলাদেশকে নিয়ে আশার ছবি দেখালেন ক্লাইভ লয়েড

আইসিসির অতিথি হয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এসেছেন ক্লাইভ লয়েড। ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি মাঝেমধ্যে ঢু মারেন দুবাই ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রেস বক্সেও। কখনও মাঠে, কখনও টিভি স্ক্রিনে চোখ নেড়ে হতাশায় মাথা নাড়েন। মাঠে যে ভুগছেন তার উত্তরসূরিরা! হয়ত নিজের সোনালী সময়ের কথা ভেবে আক্ষেপ করেন। সংবাদকর্মীদের সঙ্গে কথা বলায় তার চরম অনীহা। তবে একটু যখন মুখ খুললেন, দারুণ চমকেই দিলেন তিনি। বাংলাদেশ দলকে বেশ সম্ভাবনাময় মনে হয় দুটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের!

দুবাইয়ে মঙ্গলবারের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সুপার টুয়েলভের ম্যাচটিতে ৮ উইকেটে হেরে যায় ক্যারিবিয়ানরা। কদিন আগে এই মাঠেই নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে স্রেফ ৫৫ রানে গুটিয়ে গিয়ে হেরেছিল ৬ উইকেটে।   

সেদিন চোখে একরাশ হতাশা নিয়ে লয়েড দেখেছিলেন ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেলদের আসা যাওয়া। মঙ্গলবার ব্যাটিং একটু ভালো হলেও বোলিংয়ে ছিল না তেমন ধার। এইডেন মারক্রামের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে তারা হারে ১০ বল বাকি থাকতে। 

প্রথম দুই ম্যাচ হেরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের টিকে থাকার পথ এখন ভীষণ কঠিন। এ নিয়ে আক্ষেপ লয়েড করছিলেন সঙ্গীদের সঙ্গে। এর মাঝেই অল্প কথায় বললেন, বাংলাদেশের উন্নতি নজর কেড়েছে তার। 

“বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কা, এই দুটি দল নিয়ে আমি কথা বলছিলাম। এই দুটি দলই দারুণ সম্ভাবনাময়। আমি বিশ্বাস করি, এরা হয়ত দ্রুতই অনেক বড় কিছু করে ফেলতে পারে। আমি দেখেছি, বিশ্বকাপের আগে দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ডকে সিরিজে হারিয়ে এসেছে বাংলাদেশ।”

১৯৭৫ ও ১৯৭৯ বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কিছু দিন আগে ‘বাংলাদেশ সফর’ সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়েছিলেন উত্তরসূরিদের। বছরের শুরুতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে মূল খেলোয়াড়দের অনেক ছাড়াই বাংলাদেশ সফর যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টেস্ট দলকে উৎসাহ যোগাতে খোলা চিঠি লিখেছিলেন লয়েড। উজ্জীবিত ক্যারিবিয়ানরা দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হারিয়ে দিয়েছিল স্বাগতিকদের। সেই প্রসঙ্গ বলতে মাথা ঝাঁকিয়ে বুঝিয়ে দিলেন, মনে আছে সেই চিঠির কথা।