ছোট মাঠের সুবিধায় নয়, স্কিল দিয়েই বাংলাদেশকে হারাতে চায় উইন্ডিজ

শারজাহর মাঠ ছোট। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্য্যাটসম্যানের পেশীর জোর প্রচণ্ড। দুইয়ে মিলে সোনায় সোহাগা। বাংলাদেশের সামনে মহাবিপদ সংকেত! সাধারণ ধারণা এমনটিই। তবে সেই সরল সমীকরণ ওয়েস্ট ইন্ডিজের নেই বলেই জানালেন নিকোলাস পুরান। মাঠে তারা আগ্রাসী ক্রিকেটই খেলবেন। তবে ছোট মাঠ বলেই উড়ে যাবে বাংলাদেশ, এই ভাবনা তাদের নেই।

চলতি আসরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আগের দুটি ম্যাচই খেলেছে দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। দুটিতেই হেরেছে তারা ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। বাংলাদেশ একটি ম্যাচ খেলেছে শারজাহতে, ১৭১ রান করেও সেই ম্যাচে হেরেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বিকেল চারটায় শারজাহতে মাহমুদউল্লাহদের মুখোমুখি হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এর আগের দিন উইকেটরক্ষক ও বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান পুরান জানান, এই মাঠে খেলা বলে স্রেফ ছোট বাউন্ডারির দিকেই তাকিয়ে নেই তারা।

“অবশ্যই আমি মনে করি, এটা ঘুরে দাঁড়ানোর ভালো একটা সুযোগ। আমরা জানি না, কাল শারজাহর উইকেট কেমন আচরণ করবে। কিন্তু আমাদের মনোযোগ কেবল ছোট বাউন্ডারির দিকেই নয়।”

“আমরা কেবল নিজেদের স্কিল কাজে লাগাতে চাই। আর যখন তা করতে পারব, ফল এমনিতেই আসবে। তাই আমরা বলতে পারি না, ছোট বাউন্ডারি বলেই ছক্কা মারতে যাচ্ছি।”

শারজাহতে জিততে যে স্কোর বোর্ডে বড় সংগ্রহ লাগবে, তা নিয়ে কোনো সংশয় নেই পুরানের। নিজেদের সহজাত ক্রিকেট দিয়ে সেই দাবি মেটাতে চান তারা।

“দল হিসেবে আমরা আগ্রাসী হতে চাই। আগামীকাল যখন আমরা মাঠে যাব, পিচ ও কন্ডিশন দেখব, তখন আমরা খেলার একটা পরিকল্পনা সাজাব। যত দ্রুত সম্ভব আমরা একটা খুব ভালো সংগ্রহ গড়তে চাইব।”

অন্য সংস্করণে হলেও ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে টন্টনে ছোট মাঠে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেখানে ক্যারিয়ানরা ৩২১ রান করলেও সাকিব আল হাসানের সেঞ্চুরি ও লিটন দাসের খুনে ইনিংসে বাংলাদেশ জিতেছিল ৫১ বল বাকি থাকতে।