নেতৃত্বে নিজেকেই উপযুক্ত মনে করেন রুট

ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট
এবারের অ্যাশেজে ইংল্যান্ডের পারফরম্যান্স ছিল যাচ্ছেতাই। ভরাডুবির পর স্বাভাবিকভাবেই আঙুল উঠছে জো রুটের নেতৃত্বের দিকে। তবে নিজে থেকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে চান না তিনি। বরং বললেন, অধিনায়ক হিসেবে চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছার কথা।

রোববার শেষ হওয়া অ্যাশেজে সিডনি টেস্ট ছাড়া কোনো ম্যাচেই লড়াই করতে পারেনি ইংল্যান্ড। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে প্রথম তিন টেস্ট হারের পর চতুর্থটি ড্র করে তারা। তাতে হোয়াইটওয়াশড হওয়ার চোখ রাঙ্গানি এড়াতে পারলেও নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি পঞ্চম ও শেষ ম্যাচেও। হোবার্টের দিন-রাতের টেস্টে আবারও অস্ট্রেলিয়ান বোলারদের সামনে মুখ থুবড়ে পড়ে রুট ও তার সতীর্থরা। হেরে যায় তিন দিনেই।

অবশ্য এখানে দল ব্যর্থ হলেও পরিসংখ্যানের হিসেবে টেস্টে ইংল্যান্ডের সফল অধিনায়ক রুটই। তার নেতৃত্বে সবচেয়ে বেশি ২৭ ম্যাচ জিতেছে দলটি। ইংলিশদের সবচেয়ে বেশি ৬১ টেস্টে নেতৃত্বও দিয়েছেন তিনি।

কিন্তু রুটের অধিনায়কত্বে সবশেষ তিন অ্যাশেজ সিরিজের একটিও জিততে পারেনি ইংল্যান্ড। ২০১৯-২০ মৌসুমে ঘরের মাঠে ২-২ ড্র করে তারা। অস্ট্রেলিয়ায় দুই সফরে তো একটি ম্যাচও জেতেনি তারা।

শুধু তাই নয়, লাল বলে গত বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে তাদের অবস্থা খুবই নাজুক। এই সময়ে ১৫ টেস্টে কেবল দুটি জয়ের মুখ দেখেছে ইংল্যান্ড। এবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তো তারা পাত্তাই পায়নি।

সব মিলিয়ে অনেক দিন ধরেই রুটের নেতৃত্ব নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। তবে বাজে এই অবস্থা থেকে দলকে সাফল্যের পথে ফেরানোর আশায় দায়িত্ব চালিয়ে যেতে চান তিনি। ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য তিনি নিজেকেই সবচেয়ে উপযুক্ত মনে করেন, হোবার্টে হারের পর বলেন রুট।

“আমি বিশ্বাস করি, এই দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমিই সঠিক ব্যক্তি। তবে দায়িত্বটি (অধিনায়কত্ব) আমার হাত থেকে নেওয়ার সিদ্ধান্ত হলে সেটাই হোক। আমার মধ্যে এখনও (নেতৃত্ব) চালিয়ে যাওয়ার ও ঘুরে দাঁড়ানোর ক্ষুধা আছে।”

“এই মুহূর্তে দল হিসেবে আমরা খুব কঠিন একটি সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি, আমাদের পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো হচ্ছে না। তবে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করার সুযোগ পেলে ভালোই লাগবে…”