কুমিল্লায় রোডসকে পেয়ে রোমাঞ্চিত সালাউদ্দিন

মাত্র এক বছরের দায়িত্বেই বাংলাদেশের ক্রিকেটে চোখে পড়ার মতো ছাপ রাখতে পেরেছিলেন স্টিভ রোডস। কিন্তু এখান থেকে সুখকর হয়নি তার বিদায়। বাংলাদেশ ছেড়ে যাওয়ার পর অনেকটা আড়ালেই চলে যান তিনি। সেই রোডসকে আবার সোমবার দেখা গেল মিরপুর একাডেমি মাঠে। সদাহাস্য এই ইংলিশ কোচ আবার মাঠে ফিরলেন বাংলাদেশের ক্রিকেট দিয়েই।

এবার যদিও রোডস এসেছেন ভিন্ন ভূমিকায়। বিপিএল দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের পরামর্শক তিনি। এই দলের প্রধান কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। দেশের নামী এই কোচের সঙ্গে জাতীয় দলের সাবেক কোচ মিলে এবার ছক কাটবেন কুমিল্লার শিরোপা অভিযানের।

কুমিল্লা এবার বিদেশি ক্রিকেটার সংগ্রহে সাড়া জাগিয়েছে ফাফ দু প্লেসি, সুনিল নারাইন, মইন আলিদের দলে টেনে। তবে আরও বড় চমক বলা যায় রোডসকে নিয়ে আসা। ২০১৮ সালের জুনে বাংলাদেশের দায়িত্ব নেওয়ার পর রোডসের কোচিংয়ে বেশ কিছু সাফল্য ছিল বাংলাদেশের। এখনও পর্যন্ত দেশের একমাত্র ট্রফিও এসেছে তার সময়েই। ২০১৯ বিশ্বকাপের ব্যর্থতার পর তাকে আর রাখেনি বিসিবি।

যদিও ওই বিশ্বকাপে দলের পারফরম্যান্স নিয়ে শুরুতে তখন সন্তুষ্টির কথাই বলেছিলেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান। দায়িত্বে রাখা হবে জানিয়েই বিশ্বকাপের পর রোডসকে দেশে আনা হয় দলের সঙ্গে। তার সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ ছিল প্রায় আরও দেড় বছর। তবে দেশে ফেরার পর তার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে দেওয়া হয়। বিসিবি সেসময় বলেছিল, পারস্পরিক সমঝোতায়ই হয়েছে ওই সম্পর্কচ্ছেদ।

রোডস এরপর নীরবেই বাংলাদেশ ছেড়ে যান। একবারও মুখ খোলেননি তিনি এই অধ্যায় নিয়ে। বাংলাদেশ ছেড়ে যাওয়ার পর আর উল্লেখযোগ্য কোনো দায়িত্বেও দেখা যায়নি তাকে। ৫৭ বছর বয়সী কোচ অবশেষে কোচিংয়ে ফিরলেন তার চেনা আঙিনাতেই।

তার ভূমিকা নিয়ে অবশ্য একটু সংশয়ের অবকাশ ছিল। কুমিল্লা দলে প্রধান কোচ সালাউদ্দিন একটু স্বাধীনতা নিয়ে কাজ করতে পছন্দ করেন। তবে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সোমবার কাজের ধরন নিয়ে ধোঁয়াশা দূর করলেন সালাউদ্দিন নিজেই। রোডসকে তিনি আলিঙ্গন করলেন দুহাত বাড়িয়েই।

“ভালো কিছু পেলে, দলের লাভ হলে তো খারাপ কিছু নয়। উনি অনেক অভিজ্ঞ, বাংলাদেশেরও প্রধান কোচ ছিলেন। বাংলাদেশের অন্যতম সফল কোচ। তার মাথা থেকে অনেক ভালো কিছু আসতে পারে। আমাকে হয়ত অনেক ভালো তথ্য দেবে, আমিও হয়তো ভালো কিছু শিখতে পারব।”

“সে খুব বিনয়ী, ভালো মানুষ। এসেই ছেলেদের কাছে নিজের ভূমিকা পরিষ্কার করেছে। এর মধ্যেই ভালো ভালো কিছু পরামর্শ দিয়েছে, কীভাবে কী করতে হবে এসব নিয়ে।”

দিন দুয়েক নিজেদের মতো অনুশীলনের পর মঙ্গলবার থেকে আনুষ্ঠানিক অনুশীলন শুরু করবে কুমিল্লা দল। বিদেশিদের মধ্যে দু প্লেসি চলে এসেছেন রোববার, নারাইনের চলে আসার কথা সোমবার। অন্যরাও দু-একদিনের মধ্যে চলে আসবেন বলে জানালেন সালাউদ্দিন।