কোহলিকে অহম ছাড়তে বললেন কপিল

নেতৃত্ব ছাড়ার পর নেতা বিরাট কোহলির গুণগান চলছে। তার রেকর্ড, তার অর্জন, তার প্রভাব নিয়ে ক্রিকেট বিশ্বজুড়ে চলছে স্তুতির জোয়ার। তবে সেই জোয়ারে না ভেসে কপিল দেব তাকালেন সামনে। আঁকতে চাইলেন তিনি সামনের দৃশ্যপট। এতদিন যিনি ছিলেন দাপুটে নেতা, সেই কোহলিকে এখন তিন সংস্করণেই খেলতে হবে ‘সাধারণ’ ক্রিকেটার হিসেবে। ক্যারিয়ারের এই অধ্যায়ে সাফল্যের একটি উপায়ও কোহলিকে বাতলে দিলেন ভারতের প্রথম বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। মন থেকে মুছে ফেলতে হবে সব ইগো!

৯৯ টেস্টের ক্যারিয়ারের ৬৮টিতেই অধিনায়ক ছিলেন কোহলি। ১১ বছরের টেস্ট ক্যারিয়ারের ৭ বছরই কেটেছে নেতৃত্বে। দীর্ঘ এই পথচলার পর নেতৃত্ববিহীন সময়ে হুট করে মানিয়ে নেওয়া একটু কঠিনই হওয়ার কথা। বিশেষ করে কোহলির মতো একজন, যার নেতৃত্বের ধরন খুব প্রকাশ্য। যিনি সবসময় সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে পছন্দ করতেন এবং মাঠের ভেতরে-বাইরে বরাবরই দারুণ উচ্চকিত। সামনে থেকে আড়ালে চলে যাওয়ার কাজটি তার জন্য সহজ হওয়ার কথা নয়।

তবে কোহলির সামনে উদাহরণ স্বয়ং কপিলই। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম মিড-ডে’র সানডে সংস্করণে সাবেক অধিনায়ক নিজের নজির থেকেই পরামর্শ দিলেন কোহলির জন্য।

“সুনিল গাভাস্কারও তো আমার নেতৃত্বে খেলেছে। আমি কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত ও মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের অধিনায়কত্বে খেলেছি। আমার কোনো ইগো ছিল না। বিরাটকে নিজের ইগো ত্যাগ করে তরুণ ক্রিকেটারের নেতৃত্বে খেলতে হবে। এটা তাকে ও ভারতীয় ক্রিকেটকে সাহায্য করবে।”

“বিরাটের উচিত নতুন অধিনায়ক ও নতুন ক্রিকেটারদের পথ নির্দেশনা দেওয়া। আমরা ব্যাটসম্যান বিরাটকে হারাতে পারি না… কোনোভাবেই নয়।”

অধিনায়কত্ব থেকে বিদায়ের পর নেতা কোহলির প্রশংসার পাশাপাশি হাহুতাশও করছেন অনেকে। তার এই সিদ্ধান্ত চমক হয়ে এসেছে বর্তমান-সাবেক ক্রিকেটারদের অনেকের জন্যই। কপিলের কাছে অবশ্য উত্তরসূরীর সিদ্ধান্ত বোধগম্যই মনে হয়েছে।

“কোহলির টেস্ট অধিনায়কত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্তকে আমি স্বাগত জানাই। টি-টোয়েন্টির নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়ার পর থেকেই সে কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। সাম্প্রতিক সময়ে তাকে চিন্তিত দেখা গেছে, অনেক চাপে আছে বলে মনে হয়েছে। তাই মুক্তভাবে খেলার জন্য অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়া ছিল একটি উপায়। সেজন্যই এই পথ সে বেছে নিয়েছে।”

“সে পরিণত ছেলে। আমি নিশ্চিত, এই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অবশ্যই অনেক ভেবেছে সে। হয়তো অধিনায়কত্ব উপভোগ করছিল না। আমাদের তাকে সমর্থন করতে হবে এবং শুভ কামনা জানাতে হবে।”