মাহমুদউল্লাহ-শুভাগতকে কৃতিত্ব দিলেন সাকিব

১০ রানের মধ্যে প্রতিপক্ষের ৪ উইকেট তুলে নিয়েও ম্যাচ হেরে যাওয়া মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে সাকিব আল হাসানের। ফরচুন বরিশালের অধিনায়ক দায় দিলেন নিজেদের বোলিংকে। প্রতিপক্ষকে কৃতিত্ব দিতেও অবশ্য কার্পণ্য নেই তার। মাহমুদউল্লাহ, শুভাগত হোম ও আন্দ্রে রাসেলের প্রাপ্য প্রশংসাও করলেন সাকিব।

বিপিএলে সোমবার তারকায় ভরা দুই দলের ম্যাচে ফরচুন বরিশালকে ৪ উইকেটে হারায় মিনিস্টার ঢাকা।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে বরিশাল তোলে ১২৯ রান। দুপুরের ম্যাচে উইকেটের ধারা অনুযায়ী, যথেষ্টই লড়ার মতো রান। পরে বোলিংয়ের শুরুতেই তারা জয়ের মঞ্চ তৈরি করে ফেলে তিন ওভারের মধ্যে ঢাকার চার উইকেট তুলে নিয়ে।

কিন্তু সেই মঞ্চেই পরে বিজয় উৎসব করে ঢাকা। শুভাগত হোম ২৫ বলে ২৯ রান করার পথে মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে গড়েন ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেওয়া ৬৯ রানের জুটি। মাহমুদউল্লাহ ৪৭ বলে ৪৭ রানের সময়োপযোগী ইনিংস খেলে দলকে নিয়ে যান লক্ষ্যের খুব কাছে। আন্দ্রে রাসেল ১৫ বলে অপরাজিত ৩১ করে জিতিয়ে দেন দলকে।

ম্যাচের পর হতাশ সাকিব নিজেদের ঘাটতির পাশাপাশি বললেন প্রতিপক্ষের কৃতিত্বের কথাও।

“ব্যাটিং আমরা বেশ ভালোই করেছি। শুরুতে উইকেট একটু কঠিন ছিল, বল থমকে যাচ্ছিল। ম্যাচের পরের ভাগে উইকেট তুলনামূলকভাবে ভালো হয়ে গেছে। হয়তো একটু হয়েছে রান, আরও ১০ রান করতে পারতাম আমরা। তবে ১০ রানে ৪ উইকেট তুলে নেওয়ার পর ম্যাচটি জেতা উচিত ছিল।”

“১০ রানে ৪ উইকেট তুলে নিলে, ম্যাচ সেখানেই শেষ করা উচিত। কোনো সুযোগ দেওয়া উচিত নয় প্রতিপক্ষকে। তবে মাহমুদউল্লাহ ও শুভাগতকে কৃতিত্ব দিতেই হবে, ওরা দারুণ ব্যাট করেছে। আর রাসেল কী করতে পারে, এটা তো সবারই জানা।”

দ্রুত ৪ উইকেট হারিয়ে যখন চাপে ঢাকা, শুভাগত তখন দারুণ কিছু শট খেলে আলগা করে দেন চাপ। ঢাকা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ আলাদা করে বললেন শুভাগতর কথা।

“শুভ (শুভাগত) দারুণ ব্যাট করেছে, চাপটা আমাদের ওপর থেকে সরিয়ে নিয়েছে সে। আমাদের পরিকল্পনা ছিল, ধীরেসুস্থে ব্যাট করে জুটি গড়ে তোলা। কিন্তু সে কয়েকটি বাউন্ডারি মেরে আমার কাজটা সহজ করে দেয়। এরপর ব্যাপার ছিল স্রেফ সেটা ধরে রাখার।”

“প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছি, এটা স্বস্তির। তবে এই ম্যাচ ভুলে গিয়ে কালকে আবার নতুন করে শুরু করতে হবে।”