‘প্রস্তুত’ অ্যান্ডারসন ফেরার অপেক্ষায়

জেমস অ্যান্ডারসন। ছবি: ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।
টেস্ট ইতিহাসের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি পেসার তিনি। সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সও খারাপ নয়। তবু হারাতে হয়েছিল দলে জায়গা। ইংলিশ ক্রিকেটে পরিবর্তনের আবহে আবারও দলে ফেরার সম্ভাবনা জেগেছে জেমস অ্যান্ডারসনের। তিনিও আছেন অধীর অপেক্ষায়। বললেন, দেশের জার্সি গায়ে ফের মাঠে বল হাতে দৌড়াতে সম্পূর্ণ ফিট ও প্রস্তুত তিনি।

বছর দেড়েক ধরে টেস্টে ইংল্যান্ডের সময়টা কাটছে ভীষণ বাজে। সবশেষ ১৭ টেস্টে তারা জিততে পেরেছে কেবল একটি ম্যাচ! গত অ্যাশেজে অস্ট্রেলিয়ায় ৪-০ ব্যবধানে শোচনীয়ভাবে হারার পর দলে পরিবর্তন আনে ইংল্যান্ড।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যায় তারা অভিজ্ঞ অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রডকে বাদ দিয়ে। অ্যাশেজে দলের চরম হতাশায় যদিও তাদের পারফরম্যান্স মোটেও খারাপ ছিল না। অ্যাশেজে অ্যান্ডারসন ৩ টেস্টে উইকেট নিয়েছিলেন ৮টি। আর ব্রড সমান ম্যাচ খেলে পেয়েছিলেন ১৩টি।

মূলত বয়স ও দল পুনর্গঠনের কথা বলে বাদ দেওয়া হয় ৩৯ বছর বয়সী অ্যান্ডারসনকে। তবে সেই পুনর্গঠন প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন ওঠে অনেক।

ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে সিরিজ হারার পর টেস্ট দলের নেতৃত্ব ছেড়ে দেন জো রুট। নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হয়ে রব কি নেতৃত্ব তুলে দেন বেন স্টোকসের কাঁধে। নতুন অধিনায়ক দলে চান অ্যান্ডারসন ও ব্রডকে, বলেছিলেন সাবেক ইংলিশ ব্যাটসম্যান রব কি।

তেমনটা হলে আসছে নিউ জিল্যান্ড সিরিজেই ফিরতে পারেন অ্যান্ডারসন। স্কাই স্পোর্টসকে সোমবার ৬৪০ উইকেট শিকারি এই পেসার বললেন, ডাক পেলে নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার জন্য তৈরি আছেন তিনি।

“আমি কোনো কিছু ধরে নিতে চাই না, নিশ্চিত করতে চাই, যদি ডাক পাই তাহলে যেন সেই সময় ভালো বোলিং করতে পারি, উইকেট নিতে পারি এবং ছন্দে থাকতে পারি।”

“বছরের বেশিরভাগ সময় ধরে আমি ভেবেছি ল্যাঙ্কাশায়ারের হয়ে মৌসুমটা ভালোভাবে শুরু করা এবং এর জন্য প্রস্তুতি নেওয়ার বিষয়ে। আমি ভালো অনুভব করছি, ছন্দেও আছি, তাই সবকিছু যেভাবে হচ্ছে আমি তাতে খুশি। দলে ফিরতে পারলে খুবই খুশি হব।”

নিজেকে প্রস্তুত রাখার অভিযানে এখন ল্যাঙ্কাশায়ারের হয়ে কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে খেলছেন অ্যান্ডারসন। এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচ খেলে ১৯.৫৪ গড়ে উইকেট নিয়েছেন ১১টি। এর মধ্যে দুর্দান্ত ব্যাটসম্যান জো রুটের উইকেটও নিয়েছেন তিনি। দারুণ এক ডেলিভারিতে ইংলিশ সাবেক অধিনায়ককে বোল্ড করে দিয়েছিলেন অ্যান্ডারসন।

ঘরের মাঠে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ইংলিশদের তিন ম্যাচের সিরিজ শুরু আগামী ২ জুন, লর্ডস টেস্ট দিয়ে। নটিংহ্যামে ১০ জুন ও লিডসে ২৩ জুন শুরু হবে পরের দুই ম্যাচ।