শারমিনের ১০৯, অলরাউন্ড নৈপুণ্যে উজ্জ্বল ফাহিমা

শারমিন সুলতানা।
দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে নিজেকে মেলে ধরলেন শারমিন সুলতানা। মেয়েদের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে বাংলাদেশ দলের এই টপ অর্ডার ব্যাটার উপহার দিলেন ঝকঝকে এক সেঞ্চুরি। অলরাউন্ড নৈপুণ্যে আলো ছড়ালেন ফাহিমা খাতুন। তাতে বাংলাদেশ আনসার অ্যান্ড ভিডিপিকে স্রেফ উড়িয়ে দিল আবাহনী লিমিটেড।

বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে রোববার ২১৪ রানের বিশাল জয় পেয়েছে আবাহনী। ২৯৬ রানের বড় পুঁজি নিয়ে প্রতিপক্ষকে তারা গুঁড়িয়ে দিয়েছে কেবল ৮২ রানে।

আবাহনীর তিনশর কাছাকাছি পুঁজি গড়ার পেছনে মূল অবদান শারমিনের। ১১৬ বলে ১০৯ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা হন ডানহাতি এই ব্যাটার। ইনিংসটি গড়েন তিনি ১৩ চারে।

৫ চারে ৫৩ বলে ৫২ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন ফাহিমা। পরে লেগ স্পিনে ২ উইকেট নেন স্রেফ ৮ রান দিয়ে। শেষ দিকের দ্রুত রান তোলার চাহিদা মেটান জাহানারা আলম। এই পেসার এক ছক্কা ও ৫ চারে ৪১ বলে করেন ৫৪।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই সাবলীল ছিলেন শারমিন। ইশমা তানজিমের সঙ্গে গড়া ৭০ রানের উদ্বোধনী জুটিতে অগ্রণী ছিলেন তিনিই।

৪৯ বলে ফিফটি তুলে নেন শারমিন। পরে তৃতীয় উইকেটে জিন্নাত অর্থির সঙ্গে গড়েন ৮৮ রানের জুটি। কাঙ্ক্ষিত সেঞ্চুরিতে শারমিন পা রাখেন ১০৪ বলে। রুপা আবেদিনের বলে ক্যাচ দিয়ে শেষ হয় তার দারুণ ইনিংস।

ষষ্ঠ উইকেটে ৮৫ বলে ৯৭ রানের জুটি গড়েন ফাহিমা ও জাহানারা। ইনিংসের শেষ বলে আউট হন ৩৮ বলে ফিফটি করা জাহানারা।

আনসার অ্যান্ড ভিডিপির হয়ে যা একটু লড়াই করেন ওপেনার আফিয়া আনাম। ৩ ছক্কা ও ৮ চারে ৪১ বলে ৫৬ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

বাকি ব্যাটসম্যানদের কেউই যেতে পারেননি দুই অঙ্কে। শুরু থেকে নিয়মিত উইকেট হারিয়ে তারা গুটিয়ে যায় স্রেফ ২৬.২ ওভারে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আবাহনী লিমিটেড: ৫০ ওভারে ২৯৬/৬ (শারমিন ১০৯, ইশমা ১৮, মন্টি ৪, অর্থি ৩২, তাজ ০, ফাহিমা ৫২*, জাহানারা ৫৪; পান্না ৫-০-৩৫-০, লিলি ৬-০-৫৩-০, রুপা ১০-০-৪৮-৩, তিথি ১০-০-৪৮-১, ইসমত ২-০-১৭-০, আফিয়া ১-০-৭-০, পুজা ৭-১-৩৪-১, আয়েশা ৩-০-২৩-০, মাহমুদা মাহি ৩-০-১৭-১, আয়েশা ৩-০-১৪-০)

আনসার অ্যান্ড ভিডিপি: ২৬.২ ওভারে ৮২ (আফিয়া ৫৬, আয়েশা ৪, ইসমত ০, পান্না ১, লিলি ৮, আয়েশা ০, মাহমুদা মাহি ০, তিথি ১, পুজা ২, মাহমুদা ৩, রুপা ২*; জাহানারা ২.২-০-২০-১, হ্যাপি ৩-১-৯-০, সাবেকুন ৪-০-১৪-২, লাবনি ৭-২-২৬-২, ফাহিমা ৬-৪-৮-২, আশা ৪-২-৫-১)

প্লেয়ার অব দা ম্যাচ: শারমিন সুলতানা

বিকেএসপি-মিরপুর প্রমীলা

দিনের আরেক ম্যাচে মিরপুর প্রমীলা ক্রিকেট ক্লাবকে পাত্তাই দেয়নি বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি)। বোলারদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পর সহজ জয় তুলে নেয় তারা।

বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে মিরপুর প্রমীলা দলকে ৯ উইকেটে হারিয়েছে বিকেএসপি। প্রতিপক্ষকে স্রেফ ৪২ রানে গুটিয়ে দিয়ে তারা জয়ে তুলে নিয়েছে ৮.২ ওভারেই।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় মিরপুর প্রমীলা দল। তাদের কোনো ব্যাটারই যেতে পারেননি দুই অঙ্কে। ইনিংসে সর্বোচ্চ ৯ রান কারো ব্যাট থেকে নয়, এসেছে অতিরিক্ত থেকে।

৬ ওভার হাত ঘুরিয়ে বিকেএসপির মারুফা আক্তার ৯ রান খরচায় নেন ২ উইকেট। ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন তিনি। দুটি করে প্রাপ্তি দিশা বিশ্বাস ও রাবেয়া খানের। একটি করে উইকেট নেন ফাহমিদা ছোঁয়া ও আসরাফি ইয়াসমিন অর্থি।

রান তাড়ায় দুই ওপেনারের ব্যাটেই জয়ের দুয়ারে পৌঁছে যায় বিকেএসপি। এক চারে ১৪ রান করা ফাহমিদা স্টাম্পড হয়ে ফিরলে ১০ উইকেটের জয় আর সম্ভব হয়নি।

উন্নতি আক্তারকে নিয়ে বাকি কাজ নিরাপদেই সারেন ইভা। ৪ চারে তিনি অপরাজিত থাকেন ২৩ রান করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

মিরপুর প্রমীলা ক্রিকেট ক্লাব: ২৩.৫ ওভারে ৪২ (পাপিয়া ৭, মাসুমা ২, জনি ০, প্রমা ৮, ঝুমুর ০, অর্পা ৩, সাদিয়া ৭, মৌসুমি ১, ইয়াসমিন ১, শেজদা ০, শারমিন ৪*; মারুফা ৬-২-৯-২, ফাহমিদা ৪-০-১১-১, নিশিতা ৪-১-৬-০, দিশা ৪-১-১০-২, রাবেয়া ৫-২-৫-২, আসরাফি ০.৫-০-০-১)

বিকেএসপি: ৮.২ ওভারে ৪৩/১ (ফাহমিদা ১৪, ইভা ২৩*, উন্নতি ১*; ইয়াসমিন ৪.২-০-১৩-১, শেজদা ১-০-৭-০, পাপিয়া ১-০-৯-০, মৌসুমি ২-০-১৪-০)

প্লেয়ার অব দা ম্যাচ: মারুফা আক্তার

বিকেএসপির দুই নম্বর মাঠে এদিন হওয়ার কথা ছিল আরেকটি ম্যাচ। কিন্তু মাঠ ভেজা থাকায় পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয় কেরানিগঞ্জ ক্রিকেট একাডেমি ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের ম্যাচটি।