তাসকিনের অভাব অনুভব করছেন ডোনাল্ড

কাঁধের চোটে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের মাঝপথে দেশে ফেরার পর থেকে মাঠের বাইরে আছেন তাসকিন আহমেদ। গতি, আগ্রাসন আর কার্যকারিতার জন‍্য এই পেসারের কথা খুব মনে পড়ছে অ‍্যালান ডোনাল্ডের।

অবশ্য তাসকিন ও শরিফুল ইসলামের অনুপস্থিতি অন‍্য পেসারদের জন‍্য শেখার আরেকটি সুযোগ হিসেবে দেখছেন বাংলাদেশের পেস বোলিং কোচ। 

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের মাঝপথে ডান কাঁধে চোট পান তাসকিন। তখন বোলিং চালিয়ে গেলেও পরে দেশে ফিরে চিকিৎসক দেখাতে যান লন্ডনে। সেখানে বলা হয়েছে, আপাতত অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন নেই। তবে এখনই খেলার মতো অবস্থায় নেই তিনি।

আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে টেস্ট সিরিজেও রাখা হয়নি তাসকিনকে। কেবল ওয়ানডে সিরিজের দলে আছেন তিনি।

নিজেকে নতুন করে গড়ে নেওয়ার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট দারুণ কাটছে তাসকিনের। গত বছর ভীষণ হতাশার পর তার পারফরম‍্যান্স ছিল আলোর রেখা। পরিসংখ‍্যান ঠিকঠাক ফুটিয়ে তুলতে পারছে না এই সময়ে কতটা ভালো বোলিং করেছেন তিনি।

একটা সময়ে তাকে বড় দৈর্ঘ‍্যের উপযোগী ক্রিকেটার ভাবা হতো না। তবে সীমিত ওভারের ক্রিকেটের মতো টেস্টেও নিজের সামর্থ‍্য দেখিয়েছেন দারুণভাবে। মিরপুরের উইকেটে তৃতীয় দিনেও পেসারদের জন‍্য যথেষ্ট সহায়তা থাকায় তাসকিনের কথা বারবার মনে পড়ছে ডোনাল্ডের।

“দুর্ভাগ‍্যজনকভাবে শরিফুলের আঙুলে চিড় ধরেছে। তাসকিনের না থাকা অনেক বড় মিস। সে অসাধারণ একটা ছেলে। ওর ভেতরে দারুণ একটা চালিকা শক্তি আছে। আপনার মধ্যে বিশ্বাস জন্মাবে যে সে আপনার জন‍্য বাধার দেয়াল টপকে যাবে।” 

“তবে কোনো একজনের ম‍্যাচ মিস করা মানে আরেক জনের সুযোগ। ইবাদত ও খালেদের জন‍্য এটা শেখার আরেকটা সুযোগ। আমি চাই, সবাই যেন ওদের শেখার প্রক্রিয়াটায় চোখ রাখে ও ধৈর্যশীল থাকে। খালেদ সবসময়ই শিখছে।”

চট্টগ্রাম টেস্টে প্রথম ইনিংসে ১৬ ওভারে ৬৬ রান দিয়ে উইকেটশূন‍্য ছিলেন খালেদ। ব‍্যাটিংয়ের সময় শরিফুল চোটে ছিটকে যাওয়ায় দ্বিতীয় ইনিংসে তিনিই ছিলেন দলের একমাত্র পেসার। সেবার করেন আরও খারাপ; ৭ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে থাকেন উইকেটশূন‍্য।

মিরপুর টেস্টেও এখন পর্যন্ত পাননি কোনো উইকেট। প্রায় পুরোটা সময় জুড়েই লাইন, লেংথে ছিলেন অধারাবাহিক। লেগ স্টাম্প কিংবা এর বাইরে বল করে দিয়েছেন প্রচুর রান। মূলত তার জন‍্যই সেভাবে চাপটা ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ।

১৫ ওভারে এখন পর্যন্ত দিয়েছেন ৬২ রান। নিতে পেরেছেন কেবল একটি মেডেন। ডোনাল্ড আশায়, চতুর্থ দিন নিজেকে খুঁজে পাবেন এই পেসার।

“খালেদ আজ ঠিক মতো করতে পারেনি। তবে কাল খুব গুরুত্বপূর্ণ দিন। সকালে আমাদের কিছু উইকেট দরকার। পিচও প্রতিদিন সকালে কিছুটা সহায়তা দিচ্ছে।”

বাংলাদেশের ৩৬৫ রানের জবাবে বৃষ্টি বিঘ্নিত তৃতীয় দিন শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২৮২ রান। ৫৮ রানে ব‍্যাট করছেন অ‍্যাঞ্জেলো ম‍্যাথিউস। ১০ রানে খেলছেন দিনেশ চান্দিমাল।