চট্টগ্রামে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জেলা প্রশাসনের খাদ্য সহায়তা

চট্টগ্রামে তৃতীয় লিঙ্গের তিনশ মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে জেলা প্রশাসন।

রোববার নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেশিয়ামে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমন এসব খাদ্য সামগ্রি বিতরণ করেন।

কোভিড-১৯ জনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে লকডাউন চলাকালে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর মাঝে প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত খাদ্য সামগ্রি বিতরণের অংশ হিসেবে এসব পণ্য দেয়া হয়।

এর প্রতিটি প্যাকেটে ছিল আট কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক কেজি চিড়া, দুই কেজি আলু, এক কেজি চিনি, এক প্যাকেট সেমাই ও একশ গ্রাম চা পাতা।

এসময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, “করোনাকালে যেসব শ্রমজীবি মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে বা কষ্টে আছে তাদের প্রত্যেকের হাতে ত্রাণ পৌঁছে দিতে জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন।

“সমাজের অবহেলিত তৃতীয় লিঙ্গের হিজড়া গোষ্ঠী যারা মানুষের কাছে হাত পাতে, যাদেরকে অবহেলার চোখে দেখি, তাদেরকেও ত্রাণের আওতায় আনতে চাই। নরসুন্দর, মুচি, জেলে, প্রতিবন্ধি, বেদে সম্প্রদায় ও পরিবহন শ্রমিকসহ যারা অতি কষ্টে দিনযাপন করছে তাদের প্রত্যেককে পর্যায়ক্রমে ত্রানের আওতায় আনা হবে।”

এরআগে গত বছরের ২ এপ্রিল ১৮৮জন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ এবং ১৮১ টি বেদে পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রি বিতরণ করেছিল জেলা প্রশাসন।

হিজড়া, বেদে সম্প্রদায় পেল প্রশাসনের ত্রাণ  

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, “আমরা চাই এই পরিস্থিতিতে কেউ অনাহারে ও কষ্টে থাকবেনা। যতদিন লকডাউন চলবে ততদিন সমাজের অসহায় ও অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।”

নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের মধ্যে যারা প্রকাশ্যে সাহায্য নিতে সংকোচবোধ করছে বা সাহায্য চেয়ে টেলিফোন ও এসএমএস করছেন তাদের বাসা-বাড়িতে গিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে বলেও জানান জেলা প্রশাসক।  

নগরীতে এ পর্যন্ত দুই হাজার তিনশ প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

নগরীর বাইরে উপজেলা পর্যায়ে এ পর্যন্ত পাঁচ শতাধিক মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি কিছু অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ সহায়তাও দেয়া হয়েছে।

রোববারের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) সুমনী আক্তার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এসএম জাকারিয়া, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. নাজমুল আহসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাসুদ কামাল, সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. শহীদুল ইসলাম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল হাসান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আলী আহসান, স্টাফ অফিসার টু ডিসি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক, এনডিসি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ রানা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিজানুর রহমান, জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা সজীব চক্রবর্তী ও নবজাগরণ হিজড়া শ্রমজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি ফাল্গুনী প্রমুখ।

স্বেচ্ছাসেবক দল সিপিপি, বেটার ফিউচার বাংলাদেশ, পুর্বাশার আলো, রেড ক্রিসেন্ট, তৃণমুল নাট্যদল, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন ও নির্বাণ ক্লাব ত্রাণ বিতরণ কাজে সহযোগিতা করে।