মহামারীতে পেশা বদলে চুরিতে

চট্টগ্রামে একটি মোবাইল ফোনের দোকানে চুরির ঘটনায় খাগড়াছড়ি থেকে একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ বলছে, এই যুবক আগে মোবাইল মেকানিক ছিলেন, লকডাউনের কারণে  ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চুরির পেশা বেছে নেন।

খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙা উপজেলা থেকে রোববার গভীর রাতে পতেঙ্গা থানা পুলিশ মো. আলীম (২১) নামে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে।

আলীমের বাড়ি খাগড়াছড়ির মাটিরাঙায়। তিনি চট্টগ্রাম নগরীর কলসীদিঘির পাড়ে একটি মোবাইল সার্ভিসিংয়ের দোকান চালাতেন।

পতেঙ্গা থানার ওসি কবির হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, গত ৩১ অগাস্ট গভীর রাতে পতেঙ্গা মকবুল হাউজিং এলাকায় একটি মোবাইলের দোকানে টিনের চাল কেটে নগদ টাকা ও ৩৭টি বিভিন্ন ধরনের মোবাইল ফোন সেট চুরির ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার তদন্তে আলীমের জড়িত থাকার তথ্য পাওয়ার পর মাটিরাঙ্গায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং তার কাছ থেকে চুরি করা দুটি মোবাইল সেট জব্দ করা হয়।

আলীমকে উদ্ধৃত করে ওসি কবির বলেন, কলসী দিঘি পাড় এলাকায় আলীমের একটি মোবাইল ফোন সার্ভিসিংয়ের দোকান ছিল। দোকানে লোকসান এবং লকডাউনের কারণে তার ব্যবসা বন্ধ হয়ে যায়।

আলীম পুলিশকে জানিয়েছেন, ব্যবসার সুবাদে তার সঙ্গে স্টেশন রোড এলাকার ফিরোজ নামে এক ব্যক্তির পরিচয় হয়। যার মাধ্যমে তিনি কমদামে মোবাইল কিনে বেশি দামে বিক্রি করতেন।

ফিরোজের সঙ্গে সখ্যের পর দুজনে মিলে মোবাইল চুরিতে নেমে পড়েছিলেন বরে আলীম জানান।

ওসি কবির বলেন, ৩১ অগাস্ট মকবুল হাউজিংয়ের ওই দোকানে টিনের চাল কেটে ঢুকেছিলেন আলীম। আর বাইরে মোটর সাইকেল নিয়ে অপেক্ষায় ছিলেন ফিরোজ।

এদিকে দোকানের সিসি ক্যামেরার একটি ফুটেজে দেখা যায়, আলীম দোকানে ঢুকে স্ক্রু ড্রাইভার দিয়ে ড্রয়ার খুলছে। পরে সিসি ক্যামেরা দেখার পর টেবিলের উপরে উঠে ক্যামেরাটি অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেন।