এসিডে ‘ঝলসে দেওয়ার’ ভয় দেখিয়ে শিশুকে ধর্ষণ; দণ্ডিত আসামি গ্রেপ্তার

বাবাকে ‘হত্যার হুমকি’ এবং এসিডে ‘ঝলসে দেওয়ার’ ভয় দেখিয়ে ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণের মামলায় যাবজ্জীবন দণ্ড নিয়ে পালিয়ে বেড়ানো এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

গ্রেপ্তার উত্তম তালুকদার শিশুটির ‘নিকটাত্মীয়’ বলে জানিয়েছে র‍্যাব। তিনি চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার জামুয়াইন এলাকার রণজিৎ তালুকদারের ছেলে।

নগরীর পাহাড়তলী রেলওয়ে কলোনি থেকে বুধবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এমএ ইউসুফ।

বৃহস্পতিবার চান্দগাঁও ক্যাম্পে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব অধিনায়ক ইউসুফ বলেন, “পরিবারের সদস্যদের হত্যা, বড় বোনের সংসার ভেঙ্গে দেওয়া এবং এসিডে মুখ ঝলসে দেওয়ার হুমকি দিয়ে উত্তম বিভিন্ন সময়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে।

“সর্বশেষ ২০১৬ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর ধর্ষণের পর শিশুটি ভয়ে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দেয়। বিষয়টি জানতে পেরে পরবর্তীতে তার ভাই রাউজান থানায় উত্তমকে আসামি করে মামলা করেন।”

র‌্যাব অধিনায়ক জানান, মামলার অভিযোগপত্র দেওয়ার পর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালে বিচার কাজ শুরু হয়। গুরুত্ব বিবেচনায় ২০১৮ সালে মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইবুন্যালে স্থানান্তর করা হয়।

ওই বছরই বিচার শেষে উত্তমকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয় আদালত। কিন্তু মামলার পর থেকেই উত্তম বিভিন্ন স্থানে পালিয়ে ছিলেন বলে জানান র‍্যাব কর্মকর্তা ইউসুফ।

র‌্যাব-৭ এর হাটহাজারি ক্যাম্প কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, উত্তম ‘শিশুটির নিকটাত্মীয়’।

“যার কারণে সে ঘরে যাওয়া আসা করত এবং পরিবারের সদস্যরাও কোনো কিছু বুঝতে পারেনি। নিকটাত্মীয় হওয়ায় উত্তম শিশুটিকে ডেকে তার বাবাকে খুন করা এবং বোনের সংসার ভাঙাসহ বিভিন্ন হুমকি দেওয়ায় শিশুটি ভয় পেয়ে যেত।”