পেনশনের ফাইল আটকে ঘুষ: বিটিসিএলের দুই কর্মীর সাজা

ফাইল ছবি
পেনশনের ফাইল আটকে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিটিসিএল এর দুই কর্মচারীকে সাজা দিয়েছে আদালত।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মুন্সী আবদুল মজিদ সোমবার এ রায় দেন।

দণ্ডিতরা হলেন- বিটিসিএলের চট্টগ্রাম নন্দন কানন কার্যালয়ের প্রধান সহকারী কাম ক্যাশিয়ার মো. গিয়াস উদ্দিন ও টেলিফোন অপারেটর মো. হুমায়ুন কবির।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী কাজী সানোয়ার আহমেদ লাভলু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আসামি মো. গিয়াস উদ্দিনকে ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অন্য আসামি মো. হুমায়ুন কবিরকে এক বছরের সশ্রয় কারাদণ্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানা না দিতে পারলে আরও ১ মাসের সাজা খাটতে হবে তাকে। 

মামলার নথিতে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের ১৭ অগাস্ট বিটিসিএলের সাবেক উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. আবুল কাশেম ভূঁইয়ার পেনশনের ফাইল আটকে ২০ হাজার টাকা ঘুষ নেন আসামিরা।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাব্বির রহমান সানিসহ দুদকের একটি দল হাতেনাতে দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে।

দুদকের সাবেক উপ-সহকারী পরিচালক মানিক লাল দাশ সেদিনই মামলা করেন। তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ২১ মে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

ওই বছর ২৪ জুলাই অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আসামিদের বিচার শুরু হয়। ১৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ১০ জন সাক্ষ্য শুনে সোমবার রায় দিল আদালত।

রায় ঘোষণার পর আসামি গিয়াস উদ্দিনকে কারাগারে পাঠানো হয়। অন্য আসামি মো. হুমায়ুন কবিরের এক বছরের সাজা হওয়ায় আপিলের শর্তে তাকে তিন দিনের অন্তর্বতীকালীন জামিন দেওয়া হয়েছে বলে জানান আইনজীবী লাভলু।