দুই প্রকল্পে ১২০০ কোটি টাকা দিচ্ছে এডিবি

বাংলাদেশের দুটি প্রকল্পের জন্য ১৪ কোটি ২০ লাখ ডলার ঋণ দিচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। বর্তমান বিনিময় হার অনুযায়ী বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ এক হাজার ২০৭ কোটি টাকা।

এডিবির সহজ শর্তের এই ঋণ ২ শতাংশ সুদে ৫ বছরের রেয়াতকালসহ ২৫ বছরে পরিশোধ করতে হবে।

চলমান গ্রামীণ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পে ১০ কোটি ডলার বা ৮৫০ কোটি টাকা এবং সমন্বিত পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নে ৪ কোটি ২০ লাখ ডলার বা ৩৫৭ কোটি টাকার ঋণ চুক্তি হয়েছে।

মঙ্গলবার এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকার ও এডিবির মধ্যে দুটি আলাদা ভার্চুয়াল চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। চুক্তিতে এডিবির আবাসিক প্রতিনিধি মনমোহন পারকাশ এবং সরকারের পক্ষে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মনমোহন পারকাশ বলেন, “করোনার প্রভাব মোকাবিলায় দ্রুত আর্থ সামাজিক উন্নয়নে প্রকল্পটি ভূমিকা রাখবে। গ্রামীণ সড়ক উন্নয়নের বর্ধিত প্রকল্পের মাধ্যমে ৩৪টি জেলার ৯ কোটি মানুষ উপকৃত হবে।”

তাদের স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি ছাড়াও সরকারি পরিষেবা গ্রহণ সহজ হবে। প্রকল্পটির মাধ্যমে বাড়তি ১৭ লাখ ৩০ হাজার জনের কর্মসংস্থান তৈরি হবে বলে জানান তিনি।

অন্যদিকে ৪ কোটি ২০ লাখ ডলার অর্থায়ন করা হবে দেশের সমন্বিত পরিবহন খাত উন্নয়নের প্রস্তুতির প্রকল্পে।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, “যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে বিভিন্ন পরিবহনের সমন্বিত সংযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে। পাশাপাশি বাইপাস সড়ক এবং সংযোগ সড়কের উন্নতি করতে হবে।

কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে সরবরাহ ঠিক রাখতে যোগযোগ ব্যবস্থার উন্নতি করতে হবে।বহুমাত্রিক যোগাযোগ ব্যবস্থা বাণিজ্য বাড়াতে সাহায্য করবে বলে জানান তিনি।

এতে পরিবহন খরচ কমে আসবে এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বাড়বে বলে মনে করেন তিনি।

প্রজেক্ট রেডিনেস ফাইন্যন্সিং (পিআরএফ) খাত থেকে এই প্রকল্পে অর্থায়ন করবে এডিবি। এ ধরনের প্রকল্পের মাধ্যমে বন্দরের সাথে রেল যোগাযোগ এবং স্থলপথে সমন্বিত পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। এই প্রকল্পে সর্বমোট ব্যয় হবে ৫ কোটি ৭২ লাখ ডলার, যার মধ্যে সরকার যোগান দেবে এক কোটি ৫২ লাখ ডলার।