বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতাকে গবেষণায় কাজে লাগিয়ে অর্থনীতির নোবেল

আর্থিক নীতির পরিবর্তন কতটা কীভাবে প্রভাব ফেলে, সেই কার্যকারণ সূত্র বুঝতে বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতাকে গবেষণার উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করে নোবেল পুরস্কার পেলেন তিন অর্থনীতিবিদ।

রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্সেস সোমবার অর্থনীতিতে চলতি বছরের নোবেলজয়ী হিসেবে ডেভিড কার্ড এবং জোশুয়া ডি অ্যাংরিস্ট ও গুইডো ডব্লিউ ইমবেনসের নাম ঘোষণা করে।

এই তিন অর্থনীতিবিদ তাদের গবেষণার ক্ষেত্রে ‘ন্যাচারাল এক্সপেরিমেন্টের’ শরণ নিয়েছেন, যেখানে কোনো পরিস্থিতির প্রভাব বুঝতে বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগানো হয়।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলের অর্থনীতির অধ্যাপক ডেভিড কার্ড তার গবেষণায় দেখান, যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সিতে ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত চাকরির বাজারে কীভাবে ইতিবাচক প্রভাব রেখেছিল।

বেতন বাড়ালে চাকরির সুযোগ কমবে- এই সহজ ধারণায় যারা বিশ্বাসী ছিলেন, তাদের অনেকেই কার্ডের ওই গবেষণার পর মত বদলাতে বাধ্য হয়েছেন।

শ্রম অর্থনীতির গবেষণায় ভূমিকার জন্য এবারের নোবেল পুরস্কারের ১ কোটি ক্রোনার অর্ধেক পাবেন অধ্যাপক কার্ড।

আর বাকি অর্ধেক ভাগ করে নেবেন আমেরিকার ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) অধ্যাপক জোশুয়া ডি অ্যাংরিস্ট এবং স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির গুইডো ইমবেনস।

তারা এ পুরস্কার পাচ্ছেন ‘ক্যাজুয়াল রিলেশনশিপ’ সংক্রান্ত বিশ্লেষণের পদ্ধতিগত উন্নয়নের জন্য।  

আর্থিক সম্পদের বাজারমূল্য নির্ধারণের ক্ষেত্রে নিলাম তত্ত্বের উন্নয়ন ও নতুন রীতি উদ্ভাবনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের অধ্যাপক পল আর মিলগ্রম ও রবার্ট বি উইলসন গতবছর অর্থনীতির নোবেল পেয়েছিলেন।

বরাবরের মতই চিকিৎসা বিভাগের পুরস্কার ঘোষণার মধ্য দিয়ে গত ৪ অক্টোবর চলতি বছরের নোবেল মৌসুম শুরু হয়। পরের চার দিনে ঘোষণা করা হয় পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, সাহিত্য আর শান্তির নোবেল।

আগামী ১০ ডিসেম্বর আলফ্রেড নোবেলের মৃত্যুবার্ষিকীতে বিজয়ীদের দেওয়া হবে পুরস্কার।

মত প্রকাশের লড়াইয়ে শান্তির নোবেল পেলেন সাংবাদিক মারিয়া রেসা ও দিমিত্রি মুরাতভ

তানজানিয়ার ঔপন্যাসিক আবদুলরাজাক গুরনাহ পেলেন সাহিত্যের নোবেল  

অণু গঠনের নতুন কৌশল উদ্ভাবনে রসায়নের নোবেল  

উষ্ণতার অনুভূতির গবেষকরা পেলেন চিকিৎসায় নোবেল

জলবায়ু আর পৃথিবীর নিয়ম বোঝার চেষ্টায় পদার্থের নোবেল