‘একই দরে’ ডলার কেনাবেচা করবে ব্যাংক

সরবরাহ সংকটের মধ্যে ডলার নিয়ে অস্থিরতা কমাতে নির্দিষ্ট দরে ডলার কেনাবেচা করতে সম্মত হয়েছে ব্যাংকগুলো; যা হবে আন্তঃব্যাংক বিনিময় হার।

বেশ কিছুদিন ধরে আন্তঃব্যাংকে নির্ধারিত হারের চেয়ে বেশি দরে ডলার কেনাবেচা করার প্রেক্ষাপটে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকে এক ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত এসেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গর্ভনর ফজলে কবিরের সঙ্গে বৈঠকে টাকার বিপরীতে ডলারের বিনিময় হার নির্ধারণকারী সংগঠন বাংলাদেশ ফরেইন এক্সচেঞ্জ ডিলার’স অ্যাসোসিয়েশন (বাফেদা) এবং ব্যাংকের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকারস, বাংলাদেশ (এবিবি) এর প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

বৈঠক শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, “ইউনিফর্ম রেটে ডলার কেনাবেচা করতে সম্মত হয়েছে ব্যাংকগুলো।”

নির্ধারিত এ দর হবে আন্তঃব্যাংক বিসি দর। এ দরে রপ্তানি ও আমদানি বিল পরিশোধ করা হবে এবং ব্যাংকগুলো এ দরে ডলার কেনাবেচা করবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত এসেছে।

তবে ব্যাংকগুলো নগদে ডলার বিক্রি বা কেনার ক্ষেত্রে নিজেরা দর নির্ধারণ করতে পারবে।

সিরাজুল ইসলাম জানান, বিনিময় হার নির্ধারণে বাফেদা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে প্রস্তাব দেবে। বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় নীতিমালার আলোকে সংগঠনটি এ হার নির্ধারণ করবে, যা ব্যাংকগুলোর সব এডি শাখা মেনে চলবে।

আগামী রোববার মুদ্রার বিনিময় হার নির্ধারণের পরিকল্পনা দেবে বাফেদা। সেই প্রস্তাব পর্যালোচনা করেই বিনিময় হার নির্ধারণের সম্মতি দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

ডলারের চাহিদার বর্তমান প্রেক্ষাপটে বাজারে সরবরাহ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “বাংলাদেশ ব্যাংক প্রয়োজনীয়তার নিরিখে তারল্য সরবরাহ অব্যাহত রাখবে।”

সভায় ব্যাংকারদের সঙ্গে আলোচনা করে রপ্তানি আয়ও সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের মাধ্যমে নগদায়ন করার সিদ্ধান্ত দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

মুখপাত্র এ বিষয়ে বলেন, “‘এক্সপোর্ট প্রসিড’, রপ্তানি বিল বা মূল্য ডিসকাউন্টসহ সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের কাছেই বিক্রয় করেই নগদায়ন করতে হবে।”