চট্টগ্রামের ইতিহাস, সংস্কৃতি নিয়ে বিটিভির অনুষ্ঠান

দেশের বিভিন্ন জেলায় ও ঐতিহাসিক স্থানসমূহ নিয়ে বিটিভিতে নির্মিত হয়েছে বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান ‘বাংলাদেশের হৃদয় হতে’; এ আয়োজনের এবারের পর্ব সাজানো হয়েছে বন্দরনগরী চট্টগ্রামকে ঘিরে।

জগদীশ এষের পরিকল্পনায় অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করেছেন শাহজামান মিয়া। আলিফ চৌধুরী ও নাহিদা আফরোজ সুমির উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানটি শুক্রবার রাত ১০টা ২০ মিনিটে প্রচার হবে বলে বিটিভির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে অসহযোগ আন্দোলন, ১৯৪৭ এর দেশভাগ, ১৯৫২’এর ভাষা আন্দোলন, ১৯৬২ এর শিক্ষা আন্দোলন, লালদীঘি ময়দান থেকে ১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধুর ছয়দফা ঘোষণা, ৬৯’এর গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধসহ বাঙালি জাতির প্রতিটি স্বাধিকার আন্দোলনের সঙ্গে চট্টগ্রামের নাম জড়িয়ে রয়েছে।

সুপ্রাচীনকাল থেকে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমৃদ্ধিতে চট্টগ্রামের অবদান অনস্বীকার্য।

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানের রয়েছে সমৃদ্ধ ইতিহাস। শেফালী ঘোষ ও শ্যামসুন্দর বৈষ্ণবকে বলা হয় চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানের সম্রাট ও সম্রাজ্ঞী। মাইজভান্ডরী গান ও কবিয়াল গান চট্টগ্রামের অন্যতম ঐতিহ্য।

কবিয়াল রমেশ শীল একজন বিখ্যাত কিংবদন্তি শিল্পী। জনপ্রিয় ব্যান্ড  সোলস, এলআরবি, রেনেসাঁ, নগরবাউলের জন্ম চট্টগ্রাম থেকেই।

এছাড়া এশিয়া মহাদেশের দুটি জাতি-তাত্তিক জাদুঘরের মধ্য চট্টগ্রামের জাতিতাত্তিক জাদুঘর অন্যতম।

চট্টগ্রামের সমুদ্র বন্দর আর পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত, রুই জাতীয় মাছের প্রাকৃতিক প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদী, কর্ণফুলী টানেল, জাহাজভাঙ্গা শিল্প, প্রগতি ইন্ড্রাস্ট্রিজ, লবণ চাষ, জব্বারের বলিখেলা, ঐতিহ্যবাহী গণভোজ মেজবান, শুটকি ও বেলা বিস্কুট নিয়ে এ অনু্ষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে থাকছে চট্টগ্রামের শিল্পী রবি চৌধুরী, সন্দীপন, ইলমা, শিমুল শীল, রন্টি ও আনিকার পরিবেশনা।