‘বিড়ি জ্বালাই লে’ গানটি যেভাবে হল, বললেন বিবেক ওবেরয়

‘ওমকারা’ মুক্তির পঞ্চদশ বছর পূর্তির দিনে সেই সিনেমার তুমুল জনপ্রিয় গান ‘বিড়ি জ্বালাই লে’ নিয়ে স্মৃতিচারণ করলেন অভিনেতা বিবেক ওবেরয়।

উইলিয়াম শেকসপিয়ারের ‘ওথেলো’ অবলম্বনে বিশাল ভারদ্বাজ নির্মিত চলচ্চিত্রটি ২০০৬ সালে ২৮ জুলাই মুক্তির পর দর্শকদের মাঝে সাড়া ফেলেছিল।

বিশেষ করে সিনেমার ‘বিড়ি জ্বালাই লে’ গানটি ভারত ছাপিয়ে বাংলাদেশি দর্শকদের হৃদয়েও জায়গা করে নেয়। বিয়ে কিংবা কোনো পার্টিতে কান পাতলে এখনও গানটি শোনা যায়।

সেই গানের তালে নাচের দ্যুতি ছড়িয়ে প্রাদপ্রদীপের আলোয় উঠে এসেছিলেন বলিউডের বাঙালি অভিনেত্রী বিপাশা বসু; নাচে তাকে সঙ্গ দিয়েছিলেন সাঈফ আলী খান, বিবেক ওবেরয়।

বুধবার বার্তাসংস্থা এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সেই গানটি নিয়ে স্মৃতিচারণ করলেন বিবেক ওবেরয়।

বিবেক বলেন, “ম্যাজিক্যালি গানটি হয়েছিল। বিশাল ভাই সিনেমার একটি বিশেষ মুহূর্তের জন্য একটি গান তৈরি করতে চাইছিলেন। পরে তিনি গীতিকার গুলজার সাহেবের কাছে গিয়ে গানটি লিখতে বললেন। বিশাল ভাই তাকে ধারণা দিয়েছিলেন, তার একটা হিট গান চাই। গানটি শুধু ভালো গান হবে না, হিটও হতে হবে। গানের কথাগুলো গুলজার সাহেব তাৎক্ষণিক বলেছিলেন।”

গুলজারের কথায় বিশাল ভারদ্বাজের সুর-সংগীতে এ গানে কণ্ঠ দেন সুনিধী চৌহান, সুখিন্দর সিং, নচিকেতা চক্রবর্তী ও ক্লিনটন সেরেজো।

''  

শীতকালে ভারতের উত্তর প্রদেশে গানের দৃশ্যধারণ হয়েছিল।

বিবেক বলেন, “শীতের সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত গানের দৃশ্যধারণ হয়েছিল। প্রথমবার যখন গানটি বাজছিল তখন থেকেই সেটের সবাই পা নাচাচ্ছিল আর গানের তালে তালে দুলছিল। ক্যামেরার সামনে গানের তালে বিপাশা বসু, সাঈফ আলী খান, দিপক দব্রিয়াল ও আমি নেচেছিলাম। আমাদের সঙ্গে সেটের আশেপাশের সবাই নেচেছিল।

“প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মধ্যে মধ্যরাতেও নিজেদের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে নেচেছিলাম আমরা। তখন ঠাণ্ডা কিংবা ক্লান্তি, দুটোই তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়েছিলাম আমরা। তখন বিশেষ কিছু মনে হয়েছিল।”

এ চলচ্চিত্রে মূল ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন অজয় দেবগন। তার সঙ্গে কারিনা কাপুরও ছিলেন। তবে সাঈফের অভিনয় দারুণ প্রশংসিত হয়।