শিল্পকলায় ব্যতিক্রম নাট্যগোষ্ঠীর দুই নাটক

শারদীয়া দুর্গাপূজা উপলক্ষে ঢাকার মঞ্চে দুই নাটক নিয়ে দর্শকদের সামনে আসছে ব্যতিক্রম নাট্যগোষ্ঠী।

শিল্পকলা একাডেমির স্টুডি থিয়েটার হলে সন্ধ্যায় ৭টায় মনোজ মিত্রের রচনা ও সাইফুল ইসলাম সোহাগের নির্দেশনায় ‘পাখি’ নাটক মঞ্চস্থ হবে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

নাটকের মঞ্চায়ন শেষ হওয়ার পরপরই শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায় রচনা ও সৈয়দ মহিদুল ইসলামের ‘পিছু ডাক’ প্রদর্শিত হবে।

সাইফুল ইসলাম সোহাগ গ্লিটজকে বলেন, “শারদীয় এ আয়োজনে সব শ্রেণির দর্শকদের আসার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আশা করছি, নাটক দুটি দর্শকদের আনন্দ দেবে।”

'পাখি' নাটকের গল্প এমন- হারিকেন কোম্পানির সেলস রিপ্রেজেনটেটিভ নীতিশের পঞ্চম বিবাহ বার্ষিকী পালনের ইচ্ছে হয়। কিন্তু, অভাবের সংসারে বিবাহ বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বাধ সাধে স্ত্রী শ্যামা। নীতিশ তার সিদ্ধান্তে অটল থাকে। বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানিয়ে শেষ সম্বল প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা তোলে সে। কিন্তু, বন্ধুরা না আসায় ভেঙে পড়ে নীতিশ ও শ্যামা। পরে নিজেদের মতো করেই দিনটি পালন করে তারা।

এতে নীতিশ চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাইফুল ইসলাম সোহাগ, শ্যামা চরিত্রে সৈয়দা নওশীন ইসলাম দিশা, আইনজীবীর চরিত্রে মনি এবং গোপালের চরিত্রে সাজ্জাদ হোসাইন।

'পিছু ডাক'-এর গল্প এমন- অষ্টাদশ শতাব্দীর কোনো এক সময়ে ভারতবর্ষের একটি রেলজংশনে বসে দেবীপুরের ট্রেনের অপেক্ষায় আছেন কেশর বাইজী। সঙ্গে তার ম্যানেজার বিজয়। দেবীপুর যেতে স্টেশনে উপস্থিত হয় কিশোরী রমা ও তার স্বামী। রমা ও কেশরের কথোপকথনে উঠে আসে সংসার, স্বাধীনতাসহ অনেক বিষয়। সংসার ছেড়ে বাঈজী জীবনে এলেও স্বামী, সংসার ও মাতৃত্বের আকাঙ্ক্ষা কেশরকে এখনো পিছু ডাকে।

এতে কেশর বাইজীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন সৈয়দা নওশীন ইসলাম দিশা, বিজয় চরিত্রে সাজ্জাদ হোসাইন, দাসীর চরিত্রে আফশীন, স্বামীর চরিত্রে জাস্টিস এবং মাতালের চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাইফুল ইসলাম সোহাগ।