ডেঙ্গুতে আরও ১ মৃত্যু, হাসপাতালে রোগী বেশি ঢাকার বাইরে

ঢাকার উত্তরার বাসিন্দা মোহাম্মদ নবাব সাইকেল নিয়ে নগরীর বিভিন্ন স্থান ঘুরে ঘুরে এইডিস মশা ও ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে জনসচেতনতা তৈরি করছেন। প্রতীকী মশা হাতে শাহবাগ এলাকায় দেখা যায় তাকে। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি
দেশে এইডিস মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে; এ নিয়ে চলতি বছর সব মিলিয়ে ১০৪ জনের ডেঙ্গুতে মৃত্যুর খবর এল সরকারের খাতায়।

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর এই সংখ্যা বাংলাদেশে এ যাবতকালে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। এর আগে ২০১৯ সালে সারাদেশে ১৪৮ জনের মৃত্যু নিশ্চিত করেছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এ বছর ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ৯৪ জন, বাকি ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে দেশের বিভিন্ন জেলায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় এইডিস মশাবাহিত এই রোগে ৭০ জন দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার বাইরের বিভিন্ন জেলায় ভর্তি হয়েছেন ৬০ জন। আর ঢাকায় একদিনে ভর্তি হয়েছেন ১০ জন রোগী।

ডেঙ্গু রোগী ২৫ হাজার ছাড়াল  

এ বছর ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১০০ ছাড়াল  

ডেঙ্গু নিয়ে আরও ২০১ রোগী হাসপাতালে

নতুন আক্রান্তসহ এ পর্যন্ত সারাদেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ২৮ হাজার ২৯৯ জনে।

এ পর্যন্ত যারা আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ২৮ হাজার ৮১ জন। এখনও দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১১৪ জন ডেঙ্গু রোগী।

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে গত জুলাই মাস থেকে উদ্বেগ বাড়াতে থাকে ডেঙ্গু। সেপ্টেম্বর মাসে এ মৌসুমের সর্বোচ্চ ৭ হাজার ৮৪১ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। ওই মাসে মারা যান ২৩ জন।

২৪ ঘণ্টায় ৫৮ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে  

২৪ ঘণ্টায় ১২৩ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে  

ডেঙ্গু: শিশুদের জন্য কোভিডের ‘চেয়েও বিপজ্জনক’  

তার আগে অগাস্ট মাসে ৭ হাজার ৬৯৮ জন রোগী ডেঙ্গু নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। আর ডেঙ্গুতে প্রাণ যায় ৩৪ জনের।

অক্টোবর মাসে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে গেছেন ৫ হাজার ৪৫৮ জন, মৃত্যু হয় ২২ জনের। নভেম্বর মাসে ৩ হাজার ৫৬৭ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হন, মারা যায় ৭ জন।

আর বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরের প্রথম ২১ দিনে ডেঙ্গু নিয়ে ১ হাজার ৭৭ জন হাসপাতালে গেছেন। এ পর্যন্ত ৬ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।