কোভিড: এসকায়েফ ও বেক্সিমকোর মুখে খাওয়ার ট্যাবলেট অনুমোদন

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে টিকা দেওয়া হচ্ছে দেশজুড়ে, এখন মুখে খাওয়ার ট্যাবলেটও এসেছে।
কোভিড-১০ উপশমে মুখে খেতে এসকায়েফ ফার্মাসিউটিক্যালস এবং বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ওষুধ বাংলাদেশে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেয়েছে।

বাংলাদেশি ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান দুটি বৃহস্পতিবার তাদের ট্যাবলেট দুটি অনুমোদন পাওয়ার কথা গণমাধ্যমকে জানায়।

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আইয়ুব হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “তারা আমাদের কাছে আবেদন করেছিল। আজ তা (প্যাক্সলোভিড) ব্যবহারের জরুরি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।”

যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি ফাইজার নতুন উদ্ভাবিত নিরম্যাট্রেলভির ওষুধের সঙ্গে প্রচলিত রিটোনাভিরের সংমিশ্রণে প্যাক্সলোভিড ট্যাবলেট তৈরি করেছে।

এসকায়েফ ওষুধটি বাজারজাত করবে প্যাক্সোভির নামে। আর বেক্সিমকো এই ওষুধ বাজারে আনছে বেক্সোভিড নামে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বৃহস্পতিবার মানিকগঞ্জে এক অনুষ্ঠানে বলেন, দেশের আরও কয়েকটি ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দেওয়া হবে।

“ফাইজারের তৈরি ওষুধটি আমেরিকান এফডিআইয়ের অনুমোদন পেয়েছে। এই ওষুধের মাধ্যমে হাসপাতালে নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা ৮৮ শতাংশ কমে যাবে। মৃত্যুর হারও কমবে। অল্পদিনের মধ্যেই আরও দুই-তিনটি কোম্পানিকে অনুমোদন দেওয়া হবে। তারাও ওষুধটি উৎপাদন ও বাজারজাত করবে।”

অনুষ্ঠানে ওষুধের দাম সম্পর্কে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, পাঁচ দিন এই ওষুধটি খেতে হবে। পুরো কোর্স শেষ করতে খরচ হবে ১৬ হাজার টাকা।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসকায়েফ ফার্মাসিউটিক্যালসের পরিচালক (মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস) মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, “করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মৃদু ও মাঝারি লক্ষণযুক্ত রোগীরা এই ওষুধ খেতে পারবেন। এটা লক্ষণ উপসর্গ দেখা দেওয়ার পাঁচ দিনের মধ্যে খেতে হবে।”

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বেক্সিমকো ফার্মা বলেছে, “এই (প্যাক্সলোভিড) যুগান্তকারী ঔষধটি নিয়ে আসতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। দ্রুততম সময়ে সাধ্যের মধ্যে চিকিৎসাসেবা সহজলভ্য করার প্রতিশ্রুতি আমরা আবারও রেখেছি।

“দ্রুত সংক্রমণকারী ওমিক্রনের বিরুদ্ধে কার্যকারিতা থাকায় আমরা বিশ্বাস করি যে, করোনা মহামারীর মোকাবেলায় বেক্সোভিড শক্তিশালী ভূমিকা পালন করবে।”

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় গত ২২ ডিসেম্বর নিরম্যাট্রেলভির ও রিটোনাভির ট্যাবলেট জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয় যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন, এফডিএ। প্রাপ্তবয়স্কদের পাশাপাশি ১২ বছর বয়সী শিশুরাও এই ওষুধ খেতে পারবে।

কোভিড-১৯ চিকিৎসার জন্য দুইটি নিরম্যাট্রেলভির এবং একটি রিটোনাভির একসাথে দিনে দুইবার করে মোট ৫ দিন খেতে হবে। শুধু চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী এই ওষুধ নিতে হবে।