মেরুদণ্ডের রোগ বাড়ছে দুর্ঘটনায়, প্রশিক্ষিত চিকিৎসক তৈরির তাগিদ

দেশে দুর্ঘটনা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে মেরুদণ্ডের বিভিন্ন রোগ বাড়ায় দক্ষ ও প্রশিক্ষিত স্পাইন সার্জন তৈরির তাগিদ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

রোববার ঢাকার এক অনুষ্ঠানে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের (নিটোর) পরিচালক ডা. আব্দুল গনি মোল্লাহ বলেন, “নগরায়নের কারণে দেশে দুর্ঘটনা বেড়ে গেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা। দেশে সড়ক যোগাযোগ আরও উন্নত হচ্ছে, ফলে দুর্ঘটনা আরও বাড়বে।“

গেল ঈদে প্রায় ৬০০ মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত রোগী নিটোরে ভর্তি হয় জানিয়ে এ অর্থোপেডিক বিশেষজ্ঞ বলেন, “আহতদের মধ্যে ৫ থেকে ৬ শতাংশের স্পাইনাল ইনজুরি ছিল। সরকারি হাসপাতালগুলোর পক্ষে সবাইকে চিকিৎসা সেবা দেওয়া কঠিন। বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে এগিয়ে আসতে হবে। দুর্ঘটনার পরিমাণ আরও বাড়বে, সেজন্য আমাদের প্রস্তুতি রাখতে হবে।”

দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগী আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে বলে অনুষ্ঠানে জানান বাংলাদেশ স্পাইন অ্যান্ড অর্থোপেডিক হাসপাতালের চিফ কনসালটেন্ট অধ্যাপক ডা. মো. শাহ আলম। তিনি বলেন, “এক্ষেত্রে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে বেসরকারি হাসপাতালগুলোকেও সেবা ও দক্ষতা বাড়াতে হবে। নাহলে এতো সংখ্যক রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হবে না।”

হাসপাতালটিতে ‘বেসিক টেকনিকস অব থোরাকে-লাম্বার স্পাইন ফিক্সেশন উইথ লাইভ অপারেটিভ কোর্স’ শীর্ষক দুদিনব্যাপী কর্মশালা শেষে এ সমাপনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দিল্লির স্পাইনাল ইনজুরি সেন্টারের ডা. গুরুরাজ এম সানগোনথিমাত এবং বাংলাদেশের আটজন স্পাইন সার্জন কর্মশালায় প্রশিক্ষণ দেন।

সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ স্পাইন অ্যান্ড অর্থোপেডিক হাসপাতালের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মুসাররাত হক। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ স্পাইন সোসাইটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. খন্দকার আবদুল আওয়াল রিজভী, নিটোরের একাডেমিক ডিরেক্টর ডা. মো. মোনায়েম হোসেন, বাংলাদেশ অর্থোপেডিক সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মো. ওয়াহিদুর রহমান।