কলোনি থেকে উচ্ছেদে নোটিস, কান্দাহারে তালেবানবিরোধী বিক্ষোভ

ছবি রয়টার্সের
আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর কান্দাহারের একটি আবাসিক সেনা কলোনি থেকে সেখানকার বাসিন্দাদের চলে যেতে বলার পর কয়েক হাজার লোক তালেবান শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখিয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির সাবেক এক সরকারি কর্মকর্তা।

স্থানীয় টেলিভিশনেও মঙ্গলবার কান্দাহারে হওয়া বিক্ষোভের ফুটেজ দেখা গেছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

বিক্ষোভের প্রত্যক্ষদর্শী সাবেক ওই সরকারি কর্মকর্তা জানান, কলোনিটি থেকে প্রায় তিন হাজার পরিবারকে চলে যেতে বলা হয়েছে।

এর প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীরা কান্দাহারের গভর্নরের বাসভবনের সামনে একত্রিত হন।

বিক্ষোভকারীরা শহরটির একটি সড়কও অবরোধ করে রেখেছে বলে স্থানীয় টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে।

যে কলোনি থেকে বাসিন্দাদের চলে যেতে বলা হয়েছে সেখানে মূলত আফগানিস্তানের অবসরপ্রাপ্ত সেনা জেনারেল ও নিরাপত্তা বাহিনীগুলোর কর্মকর্তাদের পরিবারের বাস।

এ পরিবারগুলোর অনেকে শহরটিতে প্রায় ৩০ বছরের বেশি সময় ধরে বসবাস করছেন, তাদেরকে বাসা ছাড়তে তিনদিন সময় দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সাবেক ওই সরকারি কর্মকর্তা। কলোনিটির বিক্ষুব্ধ বাসিন্দাদের সঙ্গে কথাও বলেছেন তিনি।

এ উচ্ছেদের নোটিস প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানতে তালেবানের মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তাৎক্ষণিকভাবে তার সাড়া পাওয়া যায়নি।

ঝড়ের বেগে আফগানিস্তানের একের পর এক প্রাদেশিক রাজধানী দখলের পর মাসখানেক আগে তালেবান রাজধানী কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়।

এরপর তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শহরে বিক্ষিপ্তভাবে বিক্ষোভ দেখা গেছে, মাঝে মাঝে তালেবান যোদ্ধাদের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘাতও হয়েছে। তবে মঙ্গলবারের বিক্ষোভ নিয়ে এখন পর্যন্ত সহিংসতার কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

তালেবান নেতারা সব ধরনের নির্যাতনের ঘটনা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন। একইসঙ্গে বিক্ষোভকারীদেরকে বিক্ষোভের আগে কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিতেও নির্দেশ দিয়েছেন।

শুক্রবার জাতিসংঘ বলেছে, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মোকাবেলায় তালেবান ক্রমশই সহিংস হয়ে উঠছে।