মন্দিরে হামলার প্রতিবাদে জাসদের বিক্ষোভ

দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজা মণ্ডপ, মন্দির, ঘরবাড়িতে হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদ।

শনিবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে জিপিও এর সামনে জাসদ কার্যালয় চত্বরে ঢাকা মহানগর কমিটির উদ্যোগে এ মানববন্ধন ও সমাবেশ এবং বিক্ষোভ মিছিল হয়।

সমাবেশে মহানগর জাসদের যুগ্ম সমন্বয়ক নুরুল আকতার সভাপতির বক্তব্যে বলেন, "বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির অভিযাত্রাকে ব্যাহত করতেই ধর্মান্ধ সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক শক্তি সুপরিকল্পিতভাবে গুজব রটিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দুদের পূজা মণ্ডপ, মন্দির, ঘরবাড়িতে হামলা করেছে।"

জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ফজলুর রহমান বাবুল বলেন, "ধর্মান্ধ সাম্প্রদায়িক শক্তির ষড়যন্ত্র ও অপতৎপরতা রোধে আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর অপ্রস্তুত অবস্থা ও গাফিলতির কারণেই মূল্যবান কয়েকটি প্রাণ ঝরে গেল। গুজব রটনাকারী ও উস্কানীদাতা, হামলাকারীদের খুঁজে বের করে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

জাতীয় যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল কবির স্বপন বলেন, "সরকার ও প্রশাসনের উপর সব দায়িত্ব ছেড়ে না দিয়ে দেশের সকল গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক এবং সামাজিক শক্তিকে মাঠে শক্তি সমাবেশ করতে হবে।"

সমাবেশে বক্তব্য দেন জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহিল কাইয়ূম, শওকত রায়হান ও মীর্জা মো. আনোয়ারুল হক, জাতীয় শ্রমিক জোটের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সরদার খোরশেদ, ঢাকা মহানগর উত্তর জাসদের সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী, ঢাকা মহানগর পূর্ব জাসদের সহসভাপতি মাহবুবুর রহমান, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি আহসান হাবীব শামীম ও সাধারণ সম্পাদক রাশিদুল হক ননী, জাতীয় কৃষক জোটের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান ফসি, জাসদের আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. মো. সেলিম, জাতীয় যুব জোটের সহসভাপতি শুভংকর দে বাপ্পা, ঢাকা মহানগর পশ্চিম জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রাজা, কুমিল্লা জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক কাজী সাইমুল হক, শ্রমিক জোটের কেন্দ্রীয় নেত্রী শেখ শাহনাজ, ঢাকা মহানগর পশ্চিম জাসদের নেত্রী শিরীন শিকদার প্রমুখ। সমাবেশ পরিচালনা করেন, জাসদের কোষাধ্যক্ষ মো. মনির হোসেন।

সমাবেশ শেষে জাসদের নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিলসহ বঙ্গবন্ধু এভিনিউ এলাকা প্রদক্ষিণ করেন।