খালেদা জিয়া অসুস্থ: ফখরুল

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গত ৬ এপ্রিল ঢাকার বসুন্ধরার এভারকেয়ার হাসপাতালে গিয়েছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আবারও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির এক সমাবেশে তিনি বলেন, “দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া খুব অসুস্থ, অত্যন্ত অসুস্থ। তার উন্নত চিকিৎসার সুযোগ যদি না হয়, তার জীবন হুমকি মুখে পড়বে।”

মহানগর বিএনপির উত্তর ও দক্ষিণ কমিটির আয়োজনে ওই সমাবেশে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের এই পরিস্থিতি তুলে ধরেন দলের মহাসচিব।

তিনি বলেন, “আমরা বার বার বলেছি আপনাদের কাছে, তাকে মুক্তি দিন। আজকে এই সমাবেশে দাঁড়িয়ে আমরা আহ্বান জানাতে চাই, দাবি করতে চাই যে এখনো সময় আছে, আসুন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন, তাকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে দিন।”

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজা হলে কারাগারে যেতে হয় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে। পরে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাতেও তার সাজার রায় আসে।

দেশে করোনাভাইরাস মহামারী শুরুর পর খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদনে ২০২০ সালে ২৫ মার্চ তাকে নির্বাহী আদেশে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার। শর্ত দেওয়া হয়, তাকে দেশেই থাকতে হবে।

কারাগার থেকে বেরিয়ে খালেদা জিয়া গুলশানের বাসা ফিরোজায় ওঠেন, এখনও তিনি সেখানেই থাকছেন। অসুস্থতার কারণে কয়েক দফা তাকে এয়ারকেয়ার হাসপাতালেও চিকিৎসা নিতে হয়েছে।

৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়া বহু বছর ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন।

গত বছর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তার ‘পরিপাকতন্ত্রে’ রক্ষক্ষরণ এবং লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানান চিকিৎসকরা।

বাংলাদেশে খালেদা জিয়ার সুচিকিতসার ব্যবস্থা নেই দাবি করে তাকে বিদেশে পাঠানোর জন্য কয়েক দফা আবেদন করেছিলেন তার ভাই শামীম ইস্কান্দার। কিন্তু সাময়িক মুক্তির শর্তের বিষয়টি উল্লেখ করে প্রতিবারই তা নাকচ করেছে সরকার।