নাগরিক ঐক্যের পর লেবার পার্টির সঙ্গে বসল বিএনপি

‘সরকার পরিবর্তনে’ বৃহত্তর আন্দোলন প্লাটফর্ম গড়তে নাগরিক ঐক্যের পর বাংলাদেশ লেবার পার্টির সঙ্গে সংলাপ করেছে বিএনপি।

শুক্রবার বিকালে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে ২০ দলীয় জোটের শরিক লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দল বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের সঙ্গে সংলাপে বসে।

সংলাপে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খানও অংশ নেন।

দেড় ঘণ্টা ধরে আলোচনার পর নজরুল সাংবাদিকদের বলেন, “এই আলোচনায় আমরা বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং এই পরিস্থিতিতে আমাদের করণীয় ও বাস্তবায়নের কৌশল নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এতে মোটামুটি আমরা একমত হয়েছি।

“কিন্তু এ বিষয়ে আমরা বিস্তারিত বলতে চাচ্ছি না এজন্য যে, আমরা অন্যান্য দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে ঘোষণাটা আমরা যার যার অবস্থান থেকে কিংবা একযোগে দেব।”

‘জাতির এক ক্রান্তিকালে’ বিএনপির সঙ্গে সংলাপে বসার কথা জানিয়ে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, “আপনারা জানেন যে, বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই, ভোটাধিকার নেই এবং একটি জগদ্দল পাথর বাংলাদেশের ক্ষমতায় বসে আছে। দেশের আইনের শাসন ও মানবাধিকার শূন্যের কোঠায়।

“এরকম সময়ে বিএনপির এই আলোচনাকে আমরা অভিনন্দন জানাই। বাংলাদেশকে একটা গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধের যে চেতনা ও আকাঙ্ক্ষা- সেটাকে বাস্তবায়নের জন্য তারা (বিএনপি) যে উদ্যোগ নিয়েছে; এদেশের সকল দল, মত ও পথের শক্তিকে একত্রিত করে একটা গণতান্ত্রিক যে অধিকার আদায়ের সংগ্রাম শুরু করেছে, তাতে আমরা আশা করি এটা পূর্ণতা পাবে। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ লেবার পার্টি তার সর্বোচ্চ সামর্থ্য নিয়ে কাজ করবে।”

এর আগে গত ২৪ মে মাহমুদুর রহমান মান্নার নেতৃত্বাধীন নাগরিক ঐক্যের সঙ্গে সংলাপে করেন বিএনপি মহাসচিব।