পরিবেশ বাঁচাতে প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করলে বিশ্বনেতাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি

নিজেদের প্রতিশ্রুত সময়ের মধ্যে পরিবেশ দূষণ রোধে কার্যকর উদ্যোগ না নিলে বিশ্বনেতাদের বিরুদ্ধে নেদারল্যান্ডস এর হেগের আন্তজার্তিক আদালতে মামলার হুমকি দিয়েছে যুক্তরাজ্যের শীর্ষ পরিবেশ বিষয়ক সংগঠন ‘ফ্রেন্ডস অব আর্থ’।

যুক্তরাজ্যের লন্ডনে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন 'ক্লাইমেট জাস্টিস ফর বাংলাদেশ' যোগ দিতে এসে এ হুঁশিয়ারি দেন পরিবেশ সংগঠনটির মুখপাত্র জন ফুলার।

শনিবার ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ক্লাকটন-অন-সি এর বেলাভূমিতে ওই ক্যাম্পেইনটির আয়োজন করে লন্ডনে বসবাসরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব, ইউকে’।

যুক্তরাজ্য জুড়ে মানবাধিকার ও পরিবেশ আন্দোলনের জন্য পরিচিত মুখ জন ফুলার বলেন, “উন্নত দেশগুলো ৮৬ শতাংশ কার্বন নি:স্বরণের জন্য দায়ী। অন্যদিকে বাংলাদেশের মতো দেশগুলো মাত্র ১৪ শতাংশ কাবর্ন নি:স্বরণ করে জলবায়ু পরিবর্তনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ধনী দেশগুলোর কারণেই বিশ্বের দরিদ্র ও স্বল্প আয়ের দেশগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে যে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে, ধনীদেশগুলোকেই এ ক্ষতির দায় নিতে হবে।”

চলতি বছরের  নভেম্বরে যুক্তরাজ্যের গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জলবায়ু সম্মেলন। সেটিকে সামনে রেখে জলবায়ু পরিবর্তনে বাংলাদেশের ক্ষতি তুলে ধরা এবং ক্ষতিপূরণ আদায়ের ব্যাপারে আন্তর্জাতিক জনমত গঠনই এ ক্যাম্পেইনের উদ্দেশ্য বলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবের পরিচালনা পরিষদের সদস্য সাংবাদিক তানভীর আহমেদ জানান।

ক্লাবের অপর পরিচালনা পরিষদের সদস্য থার্ড সেক্টর কনসালটেন্ট বিধান গোস্বামী বলেন, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শর্তবর্ষ উদযাপনের বছরব্যাপী আয়োজনের অংশ হিসেবে লন্ডন থেকে একশ মাইল দূরে ক্লাকটন-অন-সি এর বেলাভূমিতে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই নিয়ে এই আয়োজনের মূল উদ্দেশ্যই ছিল আসন্ন জলবায়ু সম্মেলনে আসা বিশ্বনেতাদের কাছে বার্তা পৌঁছে দেওয়া।”

“এ ক্যাম্পেইনের মধ্য দিয়ে আমরা তাদেরকে অনুরোধ করছি, তারা যেন তাদের দেশের কার্বন ব্যবহার মাত্রা প্রতিশ্রুত সময়ের মধ্যে কমিয়ে দরিদ্র দেশগুলোকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে।”

ক্যাম্পেইনে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন আইনজীবী চৌধুরী হাফিজুর রহমান ও যুক্তরাজ্যে বসবাসরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।

এর আগে, শনিবার সকালে পূর্ব লন্ডনের গ্যান্টস হিল থেকে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা ঠিক বিশ্ববিদ্যালয়ের লাল বাসের মতো একটি বাসে চড়ে ক্লাকটন-অন-সির উদ্দেশে যাত্রা করে। ক্লাকটন-অন-সিতে পৌঁছেই ‘ক্লাইমেট জাস্টিস ফর বাংলাদেশ’ লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে সচেতনতা তৈরি করতে দাঁড়িয়ে যায়।

এ ক্যাম্পেইনর অংশ হিসেবে  শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক বক্তৃতা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অংশ নেয় অ্যালামনাই পরিবারের সদস্যরা।

আইনজীবী মুজাহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র পুরস্কার বিজয়ী অ্যালামনাই ও শিশু-কিশোরদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন বিবিসি বাংলা বিভাগের সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান, সাংবাদিক ইউনূস শেখ, পরিবেশবিদ শওকত আলী বেনু ও ক্লাবের পরিচালনা পরিষদের সদস্যরা।

দিনভর নানা আয়োজনের মধ্যে সঙ্গীতশিল্পী মিলন বিশ্বাস ও আবৃত্তিশিল্পী তানজিনা নূর-ই সিদ্দীকীর কবিতা প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রাণসঞ্চার সৃষ্টি করে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবের পক্ষ থেকে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্যে শুভেচ্ছা স্মারক গ্রহণ করেন মুক্তিযোদ্ধা ওয়ালিউর রহমান, ব্যারিস্টার নিজামুল হক, ফাতেহা পলি, পলি জাহান, ফাতেমা লিলি, ঝুমুর দত্ত, এম কে জিলানী, মোহাম্মদ মোকারম হোসেন, আলমগীর কবির, শাহিনা জাবিন, শায়লা শিমলা, রথীন্দ্র গোস্বামী, রবিউল ইসলাম ও শামীমা হাফিজ সহ অন্যরা।

ক্লাইমেট জাস্টিস ফর বাংলাদেশ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানটির পৃষ্ঠপোষক আইনজীবী শাহ আলম সরকার এবং এএইচজেডে-এর পরিচালক গোলাম মতুর্জাকে ধন্যবাদ জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবের পরিচালনা পরিষদের সদস্য আইনজীবী কাজী আশিকুর রহমান।

ক্যাম্পেইনে সার্বিক সহযোগিতার জন্য সঙ্গীতশিল্পী মিলন বিশ্বাস, চিত্রকর মাসুদ মিজান ও এনএইচএস ইংল্যান্ডের স্বাস্থ্যকর্মী রেহানা আক্তারকে বিশেষ সম্মাননা জানানো হয়।

প্রবাস পাতায় আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাস জীবনে আপনার ভ্রমণ,আড্ডা,আনন্দ বেদনার গল্প,ছোট ছোট অনুভূতি,দেশের স্মৃতিচারণ,রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক খবর আমাদের দিতে পারেন। লেখা পাঠানোর ঠিকানা probash@bdnews24.com। সাথে ছবি দিতে ভুলবেন না যেন!