অপেক্ষা শেষের হাসি কিংসলের

বাংলাদেশ দলে প্রথমবারের মতো ডাক পেয়েছেন এলিটা কিংসলে। ছবি: ফেইসবুক
বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে গত জুন থেকে প্রিমিয়ার লিগে খেলছেন এলিটা কিংসলে। এবার তার সামনে নতুন দেশের প্রতিনিধিত্ব করার হাতছানি। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের প্রাথমিক দলে জায়গা পেয়ে অপেক্ষা শেষ হয়েছে তার। ৩১ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড এখন লাল-সবুজ জার্সি গায়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে অভিষেকের দিকে তাকিয়ে।

আগামী ১ অক্টোবর থেকে মালদ্বীপে শুরু হতে যাওয়া সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য বুধবার দল দিয়েছেন কোচ অস্কার ব্রুসন। বাংলাদেশের হয়ে কিংসলের খেলতে পারা নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকলেও ২৭ জনের প্রাথমিক দলে তাকে রেখেছেন স্প্যানিশ কোচ।

বাংলাদেশি মেয়ে লিজাকে বিয়ে করা কিংসলে গত মার্চে পান বাংলাদেশের নাগরিকত্ব। তবে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে এ মাসের শুরুর দিকে পান পাসপোর্ট। তাতে বাংলাদেশি হিসেবে খেলার জটিলতার অবসান হয়।

২০১১ সাল থেকে বাংলাদেশের লিগে খেলা কিংসলে বর্তমানে খেলছেন প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংসের হয়ে। কিন্তু ফিফা-এএফসির কাছ থেকে ছাড়পত্র না মেলায় কিংসের হয়ে এএফসি কাপ খেলতে পারেননি তিনি। তবে প্রাথমিক দলে ডাক পেয়েই খুশি কিংসলে।

“একজন পেশাদার ফুটবলারের কাছে জাতীয় দলের জার্সি একটা স্বপ্নের মতো। এই ডাক পাওয়ার অপেক্ষাটা আমার অনেক দিনের। শেষ পর্যন্ত সেটা পেয়েছি। যদি সুযোগ পাই… এখন এই জার্সির সম্মান রাখতে চাই।”

“প্রতিটি খেলোয়াড়ই চায় তার দলকে সেরাটা দিতে। আমারও একই লক্ষ্য। তবে এর আগে আমাদের পুরো দলের সামর্থ্য সম্পর্কে ভালো করে জানতে হবে। কারণ, আমরা একেকজন একেক ক্লাব থেকে এসেছি। কিছুদিন সময় গেলেই আমরা সেটা বুঝতে পারব। সেভাবেই আমরা সাফের প্রস্তুতি নিব।”

সাফে অংশ নিতে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর মালদ্বীপের উদ্দেশে রওনা দেবে দল। তার আগেই ২৩ জনের চূড়ান্ত দল দিবেন ব্রুসন। কিংসলেকে সাফে খেলানোর ব্যাপারে আশাবাদী ন্যাশনাল টিমস কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ।

“ফিফার চাহিদা অনুযায়ী সব কাগজপত্র জমা দিয়েছি। এখন বিষয়টি পুরোটাই তাদের ওপর। আশা করছি সাফের আগে ছাড়পত্র পেয়ে যাব।”