রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ইউনাইটেডকে হারাল লেস্টার, জিতল ম্যানসিটি

আন্তর্জাতিক বিরতি থেকে ক্লাব ফুটবল মাঠে ফিরলেও ভাগ্য ফিরল না ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। পিছিয়ে পড়েও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে উলে গুনার সুলশারের দলকে হারিয়ে দিল লেস্টার সিটি। নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের হতাশার দিনে জয়ের দেখা পেল ম্যানচেস্টার সিটি।

লেস্টারের মাঠে শনিবার প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচটি ৪-২ গোলে হেরেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ম্যাচজুড়ে নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন দলটির সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো।

ইতিহাদ স্টেডিয়ামে বার্নলির বিপক্ষে ২-০ গোলে জিতেছে শিরোপাধারী ম্যানচেস্টার সিটি।

লিগে টানা তিন ম্যাচে জয়হীন রইল ইউনাইটেড। যার দুটিতেই তারা পেল হারের তেতো স্বাদ। গত রাউন্ডে এভারটনের সঙ্গে ১-১ ড্রয়ের আগে অ্যাস্টন ভিলার বিপক্ষে হেরেছিল ১-০ গোলে।

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে লেস্টারের বিপক্ষে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের দলটি হারল টানা তিন ম্যাচ, সবগুলোই চলতি বছর।

ম্যাচে বল দখলে ইউনাইটেড একটু এগিয়ে থাকলেও আক্রমণে তুলনামূলক ভালো করে লেস্টার। গোলের উদ্দেশে ২২টি শট নেয় স্বাগতিকরা, যার ১১টি লক্ষ্যে ছিল। আর সফরকারীদের ১৮ শটের ছয়টি লক্ষ্যে ছিল।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর লেস্টার সিটির জেমি ভার্ডির উচ্ছ্বাস। ছবি: রয়টার্স

শুরুর ১০ মিনিটে ইউনাইটেডের রক্ষণে আক্রমণে ভীতি ছড়ায় লেস্টার। তবে গোলরক্ষক দাভিদ দে হেয়াকে পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি তারা।

আন্তর্জাতিক বিরতির আগে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে সবশেষ চার ম্যাচের মাত্র একটিতে জেতা ইউনাইটেড এগিয়ে যায় ১৯তম মিনিটে। ব্রুনো ফের্নান্দেসের সঙ্গে বল দেওয়া-নেওয়া করে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে ঠিকানা খুঁজে নেন ম্যাসন গ্রিনউড।

২৮তম মিনিটে দ্বিগুণ হতে পারত ব্যবধান। জেডন স্যানচোর পাসে রোনালদোর শট দারুণ দক্ষতায় ফেরান গোলরক্ষক কাসপের স্মাইকেল।

দুই মিনিট পর উল্টো টিলেমানসের চমৎকার গোলে সমতা ফেরায় লেস্টার। এই গোলে যথেষ্ট দায় আছে ইউনাইটেডের রক্ষণভাগের। ডিফেন্ডার হ্যারি ম্যাগুইয়ার বলের নিয়ন্ত্রণ হারালে পেয়ে যান কেলেচি ইহেনাচো। তার পাসে ডি-বক্সে ডান পায়ের শটে দূরের পোস্টের ওপরের কোণা দিয়ে বল জালে পাঠান টিলেমানস।

৫৫তম মিনিটে রোনালদোর শট এক ডিফেন্ডার ঠেকানোর পর গ্রিনউডের প্রচেষ্টা ফেরান স্মাইকেল। ৭৫তম মিনিটে দারুণ সেভে ইউনাইটেডকে বাঁচান দে হেয়া। ডি-বক্সের বাইরে থেকে টিলেমানসের শট স্প্যানিশ গোলরক্ষকের হাত ছুঁয়ে পোস্টে লাগে।

তিন মিনিট পর আরেক জনের শট পা বাড়িয়ে ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি তিনি। কাছ থেকে লেস্টারকে এগিয়ে নেন চালার সুইয়ুনজু।

বার্নলিকে হারিয়ে প্রিমিয়ার লিগে জয়ে ফিরল ম্যানচেস্টার সিটি। ছবি: রয়টার্স

৮৩তম মিনিটে ইউনাইটেডকে সমতায় ফেরান মার্কাস র‍্যাশফোর্ড। তবে ৫৪ সেকেন্ড পরই লেস্টারকে আবারও এগিয়ে নেন জেমি ভার্ডি। আর যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে সব অনিশ্চয়তার ইতি টানেন প্যাটসন ডাকা।  

শেষ দিকে একটি সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে পারেননি রোনালদো। এরই সঙ্গে শেষ হয় অ্যাওয়ে ম্যাচে ইউনাইটেডের দারুণ এক যাত্রা। ইংলিশ লিগে প্রতিপক্ষের মাঠে ২৯ ম্যাচ পর হারল তারা।

অন্যদিকে, ঘরের মাঠে ম্যানচেস্টার সিটি এগিয়ে যায় দ্বাদশ মিনিটেই। ফিল ফোডেনের নিচু শট গোলরক্ষক নিক পোপ ঝাঁপিয়ে ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। কাছ থেকে জালে পাঠান বের্নার্দো সিলভা। দ্বিতীয়ার্ধে পরের গোলটি করেন কেভিন ডে ব্রুইনে।

এক ম্যাচ পরই লিগে জয়ে ফিরল সিটি। গত রাউন্ডে লিভারপুলের সঙ্গে ২-২ ড্র করেছিল তারা।

আট ম্যাচে পাঁচ জয় ও দুই ড্রয়ে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে পেপ গুয়ার্দিওলার দল।  ১৪ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

দিনের আরেক ম্যাচে ওয়াটফোর্ডকে ৫-০ গোলে হারানো লিভারপুল ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে।