‘রিয়াল মাদ্রিদ কখনই হাল ছাড়ে না’

আক্রমণে তেমন একটা ধার না থাকলেও প্রথমার্ধে আধিপত্য করে গোলও আদায় করে নেয় রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু বিরতির পর তাদের ওপর একটু একটু করে চেপে বসে আথলেতিক বিলবাও। দাঁতে দাঁত চেপে শেষ পর্যন্ত লড়ে তিন পয়েন্ট পাওয়ায় রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলত্তির কন্ঠে স্বস্তির ছোঁয়া। সেই সঙ্গে কঠিন সময়ে দলের লড়ে যাওয়া মানসিকতায় খুব খুশি তিনি।

সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে বুধবার রাতে লা লিগার ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে স্বাগতিকরা। প্রথমার্ধের ৪০তম মিনিটে একমাত্র গোলটি করেন করিম বেনজেমা, লিগে ফরাসি ফরোয়ার্ডের এটি দ্বাদশ গোল।

পুরো ম্যাচে গোলের উদ্দেশ্যে ১৮টি শট নেওয়া বিলবাও শেষ দিকে বেশ কয়েকবার কঠিন পরীক্ষা নেয় রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়ার। প্রতিপক্ষের আক্রমণ সামলে লিগে টানা পঞ্চম জয় তুলে নেয় রিয়াল।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে আনচেলত্তি বলেন, নিজেদের সেরা খেলাটা উপহার দিতে ব্যর্থ হলেও আসল কাজটা করতে পেরে তিনি সন্তুষ্ট।

“এটা সত্যি যে আথলেথিক বিলবাও (আগের ম্যাচের পর) আমাদের চেয়ে বেশি বিশ্রাম পেয়েছে এবং তারা খুব ভালো খেলেছে। প্রথমার্ধে আমরা ভালো করেছি। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা প্রথমার্ধের চেয়ে বেশি পাস দিতে ব্যর্থ হয়েছি এবং আমাদের ভুগতে হয়েছে।”

“মাঠে কঠিন সময়ে লড়তে জানাটাও একটি দলের গুণ। আমরা জানি, কিভাবে ফুটবল খেলতে হয়। আর যখন আমরা নিজেদের মতো করে খেলতে পারি না তখন কীভাবে লড়াই চালিয়ে যেতে হয়, সেটা জানি আমরা।”

আনচেলত্তির বিশ্বাস, হার না মানসিকতাই রিয়ালের মূল শক্তির জায়গা।

“রিয়াল মাদ্রিদ কখনও হাল ছেড়ে দেয় না। আমরা মানসিকভাবে দৃঢ় ও দলের প্রতি নিবেদিত। কখনও কখনও আমরা নিজেদের সহজাত দক্ষতা দেখাতে না পারলে অন্য পথ বেছে নেই।”

“প্রথমার্ধের চেয়ে ম্যাচের শেষটা আমার বেশি ভালো লেগেছে- আমাদের খেলায় তখন কিছু ঘাটতি ছিল।”

লিগে ১৫ ম্যাচে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে রিয়াল। ২৯ করে পয়েন্ট নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে আতলেতিকো মাদ্রিদ ও রিয়াল সোসিয়েদাদ।

নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে আগামী শনিবার রিয়ালের প্রতিপক্ষ সোসিয়েদাদ।