রোনালদোর রাগের কারণ বুঝছেন রাংনিক

ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জয়ে ফেরার ম্যাচে বদলির সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। মাঠ ছাড়ার সময় নানা অঙ্গভঙ্গিতে, এমনকি বেঞ্চে বসেও হতাশা, ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। দলের তারকা ফরোয়ার্ডের রাগ-ক্ষোভের কারণ বুঝতে পারছেন ইউনাইটেড কোচ রালফ রাংনিক।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে বুধবার রাতে ব্রেন্টফোর্ডের মাঠ থেকে ৩-১ গোলের জয় নিয়ে ফেরে ইউনাইটেড। অ্যান্থনি ইয়েলাংয়ার গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ম্যাসন গ্রিনউড। বদলি নেমে দলের তৃতীয় গোলটি করেন মার্কাস র‌্যাশফোর্ড।

নিতম্বের চোটে দুই ম্যাচ বাইরে থাকার পর ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে নেমেছিলেন রোনালদো। কিন্তু প্রথমার্ধের পুরোটা সময় তিনি ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। ৭১তম মিনিটে তাকে তুলে নিয়ে হ্যারি ম্যাগুইয়ারকে নামান রাংনিক। কোচের এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি রোনালদো।

মাঠ ছাড়ার সময় কোচকে উপেক্ষা করে পাশ কাটিয়ে চলে যান। নানা অঙ্গভঙ্গিতে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। কোট ছুঁড়ে ফেলেন। এক পর্যায়ে বেঞ্চে কোচ তার সঙ্গে কথা বলার সময়ও অসন্তোষ আড়াল করেননি রোনালদো। পুর্তুগিজ তারকার এভাবে হতাশা প্রকাশ করা দেখে তার সতীর্থরাও কিছুটা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ে যায়।

রোনালদোর ক্ষোভ, হতাশার কারণ বুঝতে পারছেন রাংনিক। দল ও তার স্বার্থেই তাকে তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলে জানালেন ইউনাইটেড কোচ।

“(ক্ষোভ-হতাশা প্রকাশ করা) এটা স্বাভাবিক। সে একজন স্ট্রাইকার এবং গোল করতে চায়। ছোটখাট চোট কাটিয়ে সে ফিরেছিল এবং আমার কাছে যে বিষয়টি মাথায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ সেটা হচ্ছে কয়েকদিন পর আরও একটা ম্যাচ আছে আমাদের।”

“অ্যাস্টন ভিলা ম্যাচের মতোই বেন্টফোর্ডের বিপক্ষে আমরা ২-০ গোলে এগিয়ে ছিলাম। ব্যবধানটা ধরে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম আমি এবং পাঁচ ডিফেন্ডারের ছকে খেলাটা ছিল সঠিক সিদ্ধান্ত।”

ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে অবশ্য একবার গোল পাওয়ার খুব কাছাকাছি গিয়েছিলেন রোনালদো। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে তার হেড ক্রসবার কাঁপিয়ে ফিরে আসে। পরে দ্বিতীয় গোলেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তিনি।