রোনালদো এই ‘কাণ্ড’ অতীতেও করেছে

প্রিমিয়ার লিগে ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে তুলে নেওয়ায় মাঠেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কোচ রালফ রাংনিকের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। এমন কাণ্ড পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড অতীতেও করেছেন বলে পুরো ব্যাপারটি স্বাভাবিকভাবেই নিয়েছেন জার্মান কোচ। তার মতে, কোচ হিসেবে তার প্রতি যথেষ্ট সম্মান রয়েছে এই পর্তুগিজ তারকার।

লিগে গত বুধবারের ম্যাচে ৩-১ গোলের জয় পেয়েছে ইউনাইটেড। নিতম্বের চোটে দুই ম্যাচ বাইরে থাকার পর ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে নেমেছিলেন রোনালদো।

কিন্তু প্রথমার্ধের পুরোটা সময় তিনি ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। ৭১তম মিনিটে তাকে তুলে নিয়ে হ্যারি ম্যাগুইয়ারকে নামান রাংনিক। কোচের এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি রোনালদো।

মাঠ ছাড়ার সময় কোচকে উপেক্ষা করে পাশ কাটিয়ে চলে যান। নানা অঙ্গভঙ্গিতে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। কোট ছুঁড়ে ফেলেন। এক পর্যায়ে বেঞ্চে কোচ তার সঙ্গে কথা বলার সময়ও অসন্তোষ আড়াল করেননি রোনালদো।

লিগে শনিবার ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডের বিপক্ষে ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে রাংনিক বললেন, রোনালদোর ওই প্রতিক্রিয়াকে তিনি ব্যক্তিগতভাবে নেননি।

“ওই ঘটনার জন্য আমি তাকে দোষ দিচ্ছি না; তবে নিঃসন্দেহে যে কোনো কোচই চাইবেন প্রতিক্রিয়াটি যেন খুব বেশি আবেগপ্রবণ না হয়ে যায়।”

“টিভি ক্যামেরার সামনে (যেটা ঘটেছে), আমি মনে করি না এটি কারও উপকারে আসবে। এই খেলাটা আবেগপূর্ণ ও খেলোয়াড়রা আবেগপ্রবণ এবং এটি আমি মোটেও ব্যক্তিগতভাবে নিইনি।”

রাংনিক মনে করিয়ে দিলেন, শুধু তিনিই নন, মাঠ থেকে তুলে নিলে রোনালদো অন্যান্য কোচদের সঙ্গেও ক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া দেখানোর ইতিহাস আছে।

“(রোনালদোর প্রতিক্রিয়াকে) আমি মোটেও এভাবে দেখিনি বা ভাবিনি যে সে আমাকে চ্যালেঞ্জ করেছে। এমনটা এই প্রথম হয়নি; স্যার অ্যালেক্স (ফার্গুসন) বা অন্যান্য কোচ যখন তাকে তুলে নিয়েছিল, আপনারা যদি সেই মুহূর্তটির দিকে তাকান, তবে তার প্রতিক্রিয়া প্রায় একই রকম ছিল।”

ঘাড়ের সমস্যার কারণে ওয়েস্ট হ্যামের বিপক্ষে রোনালদোর খেলা নিয়ে অনিশ্চয়তার কথা জানালেন রাংনিক।

“তার চিকিৎসা করা হয়েছে.. দুই থেকে তিন ঘণ্টার জন্য এবং সে এখন কেমন অনুভব করবে, তা দেখার জন্য আমাদের অপেক্ষা করতে হবে।”

২১ ম্যাচে ১০ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে আছে ইউনাইটেড। এক ম্যাচ বেশি খেলা ওয়েস্ট হ্যাম ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে আছে চারে। তাদের সমান ২২ ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ম্যানচেস্টার সিটি।