জাতীয় দলে জামালের আরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা চান কাবরেরা

সব দলেই অধিনায়কের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। মাঠে নেতৃত্ব দেওয়া তো বটেই, দলের বাকিদের সঙ্গে কোচ, কোচিং স্টাফদের সেতু বন্ধনের কাজটি মূলত করতে হয় অধিনায়ককে। এ কারণেই জাতীয় দলের নতুন কোচ হাভিয়ের কাবরেরা সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব পরিদর্শনে গিয়ে দেখা করেছেন জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূইয়ার সঙ্গে। জাতীয় দলের পারফরম্যান্সের উন্নতিতে অধিনায়কের আরও বেশি সম্পৃক্ততা ও ভূমিকা চেয়েছেন কোচ।

এ মুহূর্তে জাতীয় দলের খেলা না থাকায় ক্লাব পরিদর্শন করছেন কাবরেরা। সেই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার প্রিমিয়ার লিগে দল সাইফ স্পোর্টিংয়ে যান এই স্প্যানিশ কোচ। সেখানে গিয়েই জামালের সঙ্গে আলাদাভাবে কথা বলেছেন নানা বিষয়ে। পরে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কাবরেরা জানালেন, অধিনায়কের কাছে জানিয়েছেন নিজের প্রত্যাশা।

“জামাল খুব ভালো খেলোয়াড়। সাইফ স্পোর্টিংয়ের প্রাণভোমরা। সামনে জাতীয় দলের পারফরম্যান্স উন্নত করতে তাকেও গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে হবে।”

ফাইল ছবি

“দলের জন্য অধিনায়ক খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সে মূলত টেকনিক্যাল স্টাফ এবং খেলোয়াড়দের মধ্যে সংযোগ সেতু হিসেবে কাজ করে থাকে। সে দলে এবং খেলোয়াড়দের মধ্যে উৎসাহ জোগানোর কাজটিও করে। এ ধরনের গুণাবলীই একজন অধিনায়কের মধ্যে আমি প্রত্যাশা করি।”

আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে প্রিমিয়ার লিগের নতুন আসর। এ উপলক্ষে আন্দ্রেয়ার ক্রুসিয়ানির অধীনে প্রস্তুতি সারছে গত লিগে চতুর্থ হওয়া সাইফ স্পোর্টিং। দলটির প্রস্তুতি ও আনান্য বিষয় দেখে সন্তুষ্ট কাবরেরা।

“এখানে (সাইফ এসসির অনুশীলন) আসতে পেরে আমি আনন্দিত। দেখলাম যে ক্লাবটি খুবই গোছালো এবং অবকাঠামোর দিক দিয়েও উন্নত। ক্লাবটির টেকনিক্যাল টিমও ভালো। অনুশীলন দেখলাম। খেলোয়াড়রা বেশ ভালোই অনুশীলন করছে এবং তারা খুবই পরিশ্রমী।”

“খেলোয়াড়দের দেখে আমি মুগ্ধ। বিশেষ করে তাদের টেকনিক্যাল সক্ষমতা, নিবেদন দেখে আমি মুগ্ধ। আশা করি, এসবের ভেতর দিয়ে ভালো একটা জাতীয় দল গড়তে পারব।”

এই প্রথম জাতীয় দলের দায়িত্ব পেয়েছেন কাবরেরা। সেখানে সাইফ স্পোর্টিং কোচ ক্রুসিয়ার ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের দায়িত্বে। আর্জেন্টাইন এই কোচের হাত ধরে ২০০৫ সালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে রানার্সআপ হয়েছিল বাংলাদেশ। নতুন কোচকে কিছু পরামর্শও দিয়েছেন বলে জানালেন ক্রুসিয়ানি। ভাগাভাগি করেছেন অতীত অভিজ্ঞতা।

“আমি ওকে বলেছি দেখতে থাকো। সবকিছু জানার চেষ্টা করো। আমি ওকে বলেছি এখান থেকে ভালো কাউকে তুমি পাবেই। আমি তার সাফল্যও কামনা করেছি।”

“সারা বিশ্বেই ফুটবলের ধরন পাল্টে গেছে। আমি যখন বাংলাদেশের কোচ ছিলাম তখনকার মতো ফুটবল খেলা এখন হয় না। এখন পুরো খেলাটাই গতির, ভিন্ন এক মাত্রায় চলে গেছে ফুটবল। এখন এই দেশে অসংখ্য বিদেশি কোচ আসছেন। তারা ভালো ধারণা রাখেন। এ দেশের ফুটবলে অনেক উন্নতি হয়েছে বলাই যায়। তবে আরও অনেক অনেক উন্নতির দরকার।”