দেখিয়ে দিতে চান আজার

চুক্তির পাঁচ বছরের তিনটি বলতে গেলে হারিয়ে গেছে চোটের চোরাস্রোতে। এ সময়ে প্রত্যাশার ছিটেফোঁটা পূরণ করতে পেরেছেন এদেন আজার। রিয়াল মাদ্রিদে বাকি দুই বছরে তাই বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড দেখিয়ে দিতে চান নিজের সামর্থ্য।

২০১৯ সালে চেলসি থেকে সেসময়ের ক্লাবটির রেকর্ড ট্রান্সফার ফিতে রিয়ালে নোঙর ফেলেন আজার। চোটের উপর্যুপরি থাবায় এ পর্যন্ত মাত্র ৬৬টি ম্যাচ স্প্যানিশ ক্লাবটির হয়ে খেলতে পেরেছেন তিনি।

প্রত্যাশার তুলনায় প্রাপ্তি যৎসামান্য হওয়ায় সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে আজারের শেষ দেখছেন অনেকে। ৩১ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড অবশ্য এখনই হাল ছাড়ছেন না। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনাল সামনে রেখে বেলজিয়ামের পত্রিকা হেট লাটস্টে নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন নিজের ভাবনা।

“কোচ জানেন, এখনও আমার চুক্তির দুই বছর বাকি রয়েছে। শুরুর তিন বছর ভালো যায়নি। সবাইকে দেখাতে চাই-আমি কী করতে পারি। লিভারপুলের বিপক্ষে শনিবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে মনোযোগ দিচ্ছি এবং আসছে মৌসুমের জন্য নিজের প্রস্তুতি নিচ্ছি।”

“এখনও আমি স্বপ্নের মধ্যেই আছি, সবসময় রিয়ালে খেলার যে স্বপ্ন দেখি। আমার জীবনের লক্ষ্যই রিয়ালের হয়ে খেলা। এখানে আমার পরিবার সবসময় সুখে আছে, এমনকি এখনও।”

গোড়ালি থেকে আগের সার্জারির প্লেট অপসারণের জন্য গত মার্চে আরেকবার অস্ত্রোপচার করা হয় আজারের হাঁটুতে। তাড়াহুড়ো না করে ধীরে-সুস্থে সেরে ওঠার লক্ষ্য ছিল বলে এখন ভালো বোধ করার কথাও জানিয়েছেন আজার।

“ভালোবোধ করছি, অস্ত্রোপচার ভালোভাবে হয়েছিল। সবাই জানত, এটা আমার দরকার ছিল এবং আমি ভাগ্যবান ছিলাম যে, এটা করাতে পেরেছি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের জন্য ঠিক সময়ে ফিরতে পেরেছি।”

রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলত্তির পরিকল্পনায় আজার আছেন কি-না, কে জানে। তবে নিজের মতো করে ঠিকই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন তিনি। চাপ ভুলে হাসিখুশি থাকার চেষ্টা করছেন।