পুঁজিবাজারও খুলছে ৩১ মে

করোনাভাইরাস সঙ্কটে প্রায় দুই মাস বন্ধ থাকার পরে ৩১ মে থেকে লেনদেন শুরু হচ্ছে দেশের দুই পুঁজিবাজারে।

ওই দিন অফিস খোলা এবং গণপরিবহণ চলার সিদ্ধান্ত সরকার নেওয়ার পর বৃহস্পতিবার পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি এই সিদ্ধান্ত নেয়।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর ২৬ মার্চ সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে লকডাউন পরিস্থিতি তৈরি করলে পুঁজিবাজারও বন্ধ হয়।

এপ্রিলের শেষে সরকার লকডাউনের কিছু বিধি-নিষেধ শিথিল করলে পুঁজিবাজার সচল করার সুপারিশ করেছিল ডিএসই ও সিএসই। কিন্তু তাতে সায় দেয়নি বিএসইসি।

অফিস খোলা ও বাস, ট্রেন, লঞ্চ চালুর প্রজ্ঞাপনের পর বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) সভায় বসে।

নতুন চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামের সভাপত্ত্বি সভায় দেশের পুঁজিবাজার খোলার ব্যাপারে অনাপত্তি দেওয়া হয়েছে বলে বিএসইসি নির্বাহী পরিচালক আনোয়ারুল ইসলাম জানিয়েছেন।

  পুঁজিবাজারও ৩০ মে পর্যন্ত বন্ধ

চার বছরের জন্য বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী  

সভা শেষে জানানো হয়, “কোভিড-১৯ এর বিস্তাররোধে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়, সরকার প্রণীত সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত অফিস আদেশ পরিপালন সাপেক্ষে স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন ও সেটেলমেন্টসহ এতদ সংক্রান্ত সকল কর্মকাণ্ড শুরু করার জন্য বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) পক্ষ থেকে অনাপত্তি দেওয়া হল।”

অনাপত্তি পেয়ে যাওয়ায় রোববার থেকে লেনদেন শুরু হবে বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পরিচালক রকিবুর রহমান এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম।

রকিবুর রহমান বলেন, “আমরা রোববার থেকে লেনদেন শুরু করব। এই সিদ্ধান্তর জন্য বিএসইসিকে অনেক ধন্যবাদ।”

ডিএসইর উপ মহাব্যবস্থাপক শফিকুর রহমান জানিয়েছেন, লেনদেন চলবে সাড়ে ১০টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত।

সিএসই চেয়ারম্যান সভাপতি আসিফ ইব্রাহিমও বলেন, “আমরা রোববার থেকে লেনদেন শুরু করব।”