এনার্জিপ্যাকের আইপিও অনুমোদন

পুঁজিবাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা তুলবে এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড।

বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে এই পরিমাণ অর্থ মূলধন হিসেবে তুলবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটি।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এনার্জিপ্যাকের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিও অনুমোদনের কথা জানায়।

এখন নিয়ম অনুযায়ী এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন তাদের শেয়ারের দাম নির্ধারণের জন্য ইলেকট্রনিক বিডিং করাতে পারবে।

এর মাধ্যমে এনার্জিপ্যাক শেয়ারের প্রান্তসীমা মূল্য বা কাট-অফ প্রাইস নির্ধারিত হবে।

প্রান্তসীমা মূল্য বা কাট-অফ প্রাইসে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা শেয়ার পাবেন এবং এর ১০ শতাংশ কম দামে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা এনার্জিপ্যাকের শেয়ার পাবেন।

আইপিওর মাধ্যমে ১৫০ কোটি টাকা সংগ্রহ করে এনার্জিপ্যাক মূলত তাদের এলপিজি প্রকল্পের ব্যবসা সম্প্রসারণ করবে বলে জানিয়েছে। এছাড়া ব্যাংক ঋণ পরিশোধেও এই কিছু অর্থ ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৯ সালের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশনের শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য ৩০ টাকা ২০ পয়সা এবং শেয়ার প্রতি মুনাফা ৩ টাকা ১৩ পয়সা। আর বিগত ৫ বছরের শেয়ার প্রতি মুনাফার ভারিত গড় হচ্ছে ২ টাকা ২১ পয়সা।

এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশনের আইপিওর ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে লংকা বাংলা ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।