সবচেয়ে বেশি লেনদেন রবির

বাংলাদেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বুধবার সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে মোবাইল অপারেটর রবির শেয়ার।

এদিন ডিএসইতে রবির মোট ৬ কোটি ৬২ লাখ ৫৮ হাজার ৭৯৫টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

রবির তালিকাভুক্তির পর এটাই এই শেয়ারের সর্বোচ্চ লেনদেন।

টাকার অংকে রবির এই শেয়ারের মোট মূল্য ৪৩৬ কোটি ৫৪ লাখ টাকা, যা ডিএসইর দিনের মোট লেনদেনের এক পঞ্চমাংসেরও বেশি। 

বুধবার ৭৭ হাজার ৫০৪ বার লেনদেন হয় রবির শেয়ার। কিন্তু এই দিনই প্রথম রবির শেয়ার সার্কিট ব্রেকার স্পর্শ করেনি। এর আগে টানা ১৩ দিন সর্বোচ্চ পরিমাণ বেড়েছে রবির শেয়ারের দাম।

রবির লেনেদেন পুঁজিবাজারে শুরু হয়েছে ২৪ ডিসেম্বর ২০২০। সেদিন থেকে টানা দাম বাড়ার সর্বোচ্চ সীমা পর্যন্ত বেড়েছে এই শেয়ার।

১০ টাকার শেয়ার মঙ্গলবার পর্যন্ত বেড়ে হয়েছিল ৬৩ টাকা ২০ পয়সা। কিন্তু বুধবার মাত্র ৬০ পয়সা বেড়েছে এই শেয়ারের দাম।

এক মাসে শেয়ারের দর অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়া কোম্পানিগুলোর বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থার তদন্তের ঘোষণার পরদিন এই শেয়ারের দাম কমে গেল।

এবিষয়ে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ মুসা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “অনেক বিনিয়োগকারী মুনাফায় ছিল। তারা মনে করেছিল, শেয়ারের দাম আরো বাড়বে। তাদের কেউ কেউ আজকে তাদের শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছে এবং মুনাফা তুলে নিয়েছে।

“এছাড়া শেয়ারের দাম বাড়া নিয়ে তদন্ত শুরুর খবরে কেউ কেউ ভয় পেয়ে শেয়ার ছেড়ে দিয়েছে। এর ফলে শেয়ারের দাম কমে গেলেও লেনদেন বেড়ে গেছে।”

আগের দিন ঢাকা ও চট্টগ্রামের পুঁজিবাজারে প্রায় শেয়ারের সাধারণ সূচক প্রায় আড়াই শতাংশ বেড়ে যায়।

রাতেই এক মাসের মধ্যে ৫০ শতাংশের বেশি ওঠানামা করা শেয়ারের দাম নিয়ে স্টক এক্সচেঞ্জকে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেয় বিএসইসি।