সর্বোচ্চ দরে লেনদেন শুরু বারাকা পতেঙ্গার

পুঁজিবাজারে প্রথম লেনদেনে বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ারের শেয়ার সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে তালিকাভুক্ত হয় আইপিও প্রক্রিয়ায় মূলধন উত্তোলনকারী কোম্পানিটি।

প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দিন শেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারদর ১০ শতাংশ বেড়ে ৩১ টাকা ৯০ পয়সায় উঠেছে।

বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে আইপিওতে কোম্পানিটি সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ২৯ টাকা দরে শেয়ার বিক্রি করেছিল।

বৃহস্পতিবার নিয়ম অনুযায়ী এই দরেই শেয়ার লেনদেন শুরু হয়। দাম বৃদ্ধি বা কমার সার্কিট ব্রেকারের নিয়ম অনুযায়ী এদিন সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ দাম বাড়ার সুযোগ ছিল।  

এ দিন ৩৬ বারে বারাকা পতেঙ্গার মোট ২৭ হাজার ৩৩টি শেয়ার হাতবদল হয়, টাকার অংকে যার দাম ৮৬ লাখ টাকা।

বৃহস্পতিবার বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার ডিএসইতে “এন” ক্যাটাগরিতে লেনদেন শুরু করেছে। এর লেনদেনের কোড হয়েছে “বিপিপিএল”। কোম্পানি কোড ১৫৩২৪।

কোম্পানিটির চেয়ারম্যান গোলাম রব্বানী চৌধুরী এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনজুর কাদির শরিফ।

২০২০ সালের ৩০ জুনের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী তাদের মোট সম্পদের পরিমাণ ২ হাজার ৬৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকা।

২০১৯-২০ অর্থবছরে কোম্পানিটি সম্মিলিতভাবে মুনাফা করেছে ৬৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকা, যা আগের অর্থবছরের দ্বিগুণের বেশি।

বৃহস্পতিবার বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার  ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসের মুনাফা প্রকাশ করেছে। এসময় তারা ৫০ কোটি ১৫ লাখ টাকা মুনাফা করেছে। সেই হিসাবে শেয়ার প্রতি মুনাফা হয়েছে ২ টাকা ৯০ পয়সা।  

পুঁজিবাজারে কোম্পানিটির ১৭ কোটি ২৯ লাখ ৯৫ হাজার ৪৮৮টি শেয়ার আছে। এর মধ্যে ৩৮ দশমিক ১৫ শতাংশ আছে পরিচালকদের হাতে।

এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে ২১ দশমিক ৬৩ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে ৪০ দশমিক ২২ শতাংশ শেয়ার আছে।

কোম্পানির বর্তমান বাজার মূলধন ৫৫১ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। পরিশোধিত মূলধন ১৭২ কোটি ৯৯ লাখ টাকা; রিজার্ভের পরিমাণ ১২৯ কোটি ১ লাখ টাকা।