সূচক বেড়েছে পুঁজিবাজারে

মহামারী ও লকডাউনের কারণে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের একটি ব্রোকারেস হাউজে বৃহস্পতিবার শেয়ার কেনাবেচায় পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীরা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি
সপ্তাহের দ্বিতীয় দিনের লেনদেনে সূচক সামান্য বেড়েছে দেশের দুই পুঁজিবাজারে।

সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ১৪ দশমিক শূন্য ১ পয়েন্ট বা দশমিক ১৯ শতাংশ বেড়ে ৭ হাজার ২০৫ দশমিক ৮২ পয়েন্ট হয়েছে।

এ বাজারে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ১৩ দশমিক ৭৪ শতাংশ বা ২৭১ কোটি ২১ লাখ টাকা কমেছে।

ঢাকায় এদিন ১ হাজার ৭৬২ কোটি ৫৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের কর্মদিবসে ২ হাজার ৩৩ কোটি ৭৭ লাখ টাকা ছিল।

ঢাকার পুঁজিবাজারে এদিন ৪৭ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে।        

লেনদেন হওয়া ৩৭৪টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিটের মধ্যে ১৭৪টির দর বেড়েছে, ১৬৩টির কমেছে এবং ৩৭টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

ঢাকার বাজারের অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৩ দশমিক ২৭ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৫৭০ দশমিক শূণ্য ৮ পয়েন্ট হয়েছে। আ ডিএস৩০ সূচক ৫ দশমিক ৬১ পয়েন্ট বেড়ে তিন শেষ করেছে ২ হাজার ৬৬১ দশমিক ৪২ পয়েন্ট নিয়ে।

লেনদেনের শীর্ষ ৫টি কোম্পানি: বেক্সিমকো, লাফার্জ, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, বেক্সিমকো ফার্মা এবং আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি।

দাম বাড়ার তালিকায় শীর্ষ ৫ কোম্পানি: ফার কেমিকেল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্সুরেন্স কোম্পানি, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স, খান ব্রাদার্স অ্যান্ড কোম্পানি এবং সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।

সবচেয়ে বেশি দর হারানো ৫ কোম্পানি: বাংলাদেশ মনোস্পুল পেপার ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি, পেপার প্রসেসিং অ্যান্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ফার্স্ট জনতা ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ইবিএল ফার্স্ট মিউচ্যয়িাল ফান্ড এবং ডমিনোজ স্টিল বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেড।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে এদিন সূচকের পাশাপাশি লেনেদেনও বেড়েছে। 

এ বাজারের প্রধান সূচক সিএএসপিআই ৪৭ দশমিক ৪১ পয়েন্ট বেড়ে ২১ হাজার ৩০ দশমিক ২৩ পয়েন্ট হয়েছে।

লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ১৩ দশমিক ৭৮ শতাংশ বা ৯ কোটি ১৮ লাখ টাকা বেড়েছে।

এদিন মোট ৭৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিন ৬৬ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ছিল।

সিএসইতে ৩২৫টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড কেনাবেচা হয়েছে এদিন। এর মধ্যে ১৫৬টির দর বেড়েছে, ১৩১টির কমেছে এবং ৩৮টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।